জুমার বয়ানে নাচ-গানের বিরুদ্ধে বলায় খতিবকে মারধর

  নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি

০১ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৯:৪৮ | অনলাইন সংস্করণ

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে অশ্লীল গান-গানের বিরুদ্ধে আলোচনা রাখায় জুমার নামাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে মারধরের শিকার হয়ে রক্তাক্ত হলেন মসজিদের খতিব। শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের করলিয়ামুরা দারুসসালাম জামে মসজিদ সংলগ্ন সড়কে এ ঘটনা ঘটে।

মারধরের শিকার মসজিদের খতিব মাওলানা সৈয়দ নুর হলুদ্যাশিয়া এলাকার বাসিন্দা মোস্তাফিজুর রহমানের ছেলে। এদিকে ঘটনার পরপরই অভিযুক্ত স্থানীয় বাসিন্দা হাজী আলী আহমদের সদ্য বিবাহিত ছেলে নুরুল ইসলাম পলাতক রয়েছেন।

মুসল্লিদের অভিযোগ, করলিয়ামুরা দারুসসালাম জামে মসজিদের খতিব মাওলানা সৈয়দ নুর জুমার নামাজে কোরআন ও হাদিসের আলোকে ‘সৎ কাজের আদেশ ও অসৎ কাজের নিষেধের’ ব্যাপারে বয়ান করেন। আলোচনা করার সময় তিনি এলাকায় অশ্লীল গান-বাজনা থেকে এলাকাবাসীকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান। এতেই স্থানীয় বাসিন্দা নুরুল ইসলাম ক্ষুব্ধ হয়ে মসজিদের খতিবকে মারধর করে রক্তাক্ত জখম ও পরিধেয় কাপড় ছিড়ে ফেলেন।

স্থানীয়রা জানান, গত কিছুদিন আগে মসজিদ সংলগ্ন হাজী আলী আহমদের বাড়িতে তার পুত্র নুরুল ইসলামের বিয়ের জমকালো আয়োজন হয়। তার বাড়িতে রাতভর অশ্লীল নাচ-বাজনা চলে। জুমার নামাজের পূর্বে মসজিদের খতিব ‘সৎ কাজের আদেশ ও অসৎ কাজের নিষেধ’ কোরআনের আয়াত দ্বারা ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ করে মুসল্লিদের বোঝাচ্ছিলেন। পরে নামাজ শেষে ইমামকে এ মারধরের ঘটনা ঘটে। স্থানীয় মুসল্লিরা আকস্মিক এ ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনায় হতভম্ব হয়ে পড়েন এবং উক্ত ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদেরকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার জন্য প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান।

মসজিদের খতিব মাওলানা সৈয়দ নুর বলেন, আমি কারও নাম ধরে জুমার নামাজের পূর্বে আলোচনা করেনি। আমি শুধু এলাকার সামগ্রিক বিষয়ের উপর আলোকপাত করে এলাকাবাসীকে ‘সৎ কাজের আদেশ ও অসৎ কাজের নিষেধের’ ব্যাপারে সতর্ক করেছি মাত্র। তিনি আরও বলেন, নামাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে কিছু বুঝে উঠার আগেই আমাকে দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়। এতে আমি রক্তাক্ত জখম হয় এবং গায়ের জামা ছিড়ে ফেলা হয়। তার সাথে আমার কোনো পূর্বশত্রুতা নেই।

এদিকে অভিযুক্ত নুরুল ইসলাম পলাতক ও মুঠোফোন বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে বাইশারী তদন্ত কেন্দ্রের অতিরিক্ত দায়িত্বে নিয়োজিত এসআই সৌরভ বলেন, ঘটনাটি শোনার সাথে সাথে সঙ্গীয় ফোর্সসহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে