প্রধানমন্ত্রী নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে বাধ্য হবেন

  অনলাইন ডেস্ক

০৭ ডিসেম্বর ২০১৭, ২৩:১৫ | অনলাইন সংস্করণ

বিএনপি নাকে খত দিয়ে বিএনপি নির্বাচনে আসবে-এই ধরনের বক্তব্য গ্রাম্যতা। প্রধানমন্ত্রীকে গ্রাম্যতা থেকে বের আসলে ভালো হয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও জাতীয় সংসদে বিরোধীদলীয় সাবেক চিফ হুইপ জয়নাল আবদীন ফারুক। পাশাপাশি বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, বিএনপিকে বরণ ডালা পাঠানোর সুযোগ নেই, দরকারও নেই। দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা বাতিল করে সংবিধান সংশোধন করে নির্দলীয় সরকারের যে ব্যবস্থা ছিলো সেটা ফিরিয়ে আনা হোক। তাহলেই হবে।

বৃহস্পতিবার সন্ধায় গণমাধ্যমে এ কথা বলে তারা। ফারুক আরও বলেছেন, বিএনপি কখনও নাকে খত দিয়ে নির্বাচনে যায়নি, যাবেও না। বরং জনগণের চাপে প্রধানমন্ত্রী নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে বাধ্য হবেন। রধানমন্ত্রী কোনো ক্রাইসিস না দেখলেও দেশে গণতন্ত্রের সংকট চলছে এটা মানতে হবে। বিরোধী দল সভা-সমাবেশ করতে পারে না। নেতাকর্মীদের পুলিশি হয়রানির ভেতর দিয়ে চলছে। এ অবস্থায় একটি সুষ্ঠু নির্বাচন প্রয়োজন।

উল্লেখ্য, সদ্য সমাপ্ত কম্বোডিয়া সফর নিয়ে বৃহস্পতিবার গণভবনে ডাকা সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপিকে আগামী নির্বাচনে আনতে কোনো উদ্যোগ নেবে না সরকার। তাদেরকে (বিএনপি) কি বরণ ডালা পাঠাতে হবে? মনে হচ্ছে বরণ ডালা পাঠাতে হবে। দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করলেও বিএনপি আগামী নির্বাচনে নাকে খত দিয়ে আসবে বলেও মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।

 

 

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে