ডিএনসিসি’র মেয়র প্রার্থী তাবিথ

  অনলাইন ডেস্ক

১৬ জানুয়ারি ২০১৮, ০০:৩৬ | অনলাইন সংস্করণ

আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) উপনির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে বিএনপি। ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী হিসেবে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়ালকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারির ভোটে তিনিই ধানের শীষ প্রতীকে লড়বেন। সোমবার রাতে চেয়ারপারসনের গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাংবাদিকদেরকে এ তথ্য জানান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এর আগে গুলশান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মনোনয়ন বোর্ড দলীয় প্রার্থী হিসেবে তাবিথ আউয়ালকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেয়। মনোনয়ন বোর্ডে সভাপতিত্ব করেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেয়ার পর বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর তাবিথের নাম ঘোষণা করেন। তাকে বেছে নেওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করে ফখরুল বলেন, ‘পাঁচজন প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন, তাদের সবাই যোগ্য। তবে আমরা মনে করি, এই নির্বাচনে জয়লাভ করার জন্য সে (তাবিথ) যোগ্য ক্যান্ডিডেট।’

মনোনয়ন পাওয়ার পর এক প্রতিক্রিয়ায় তাবিথ আউয়াল বলেছেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন ধানের শীষের পক্ষে আমাকে মনোনীত করেছেন। আমি মনে করি আজ সমস্ত বাংলাদেশের তরুণদের বিজয় হয়েছে। বিএনপির মতো একটা বড় দল তরুণদের প্রতি আস্থা রেখেছে। তা আমাকে অনুপ্রাণিত করবে। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া আগেই বলেছিলেন আগামীর বাংলাদেশ হবে তরুণদের। তিনি তার কথা রেখেছেন।’

মেয়র আনিসুল হকের ‍মৃত্যুর পর ভোটের আলোচনার শুরু থেকেই তাবিথকে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে দেখা হচ্ছিল। তবে গত কয়েকদিন ধরে বিএনপির বিশেষ বিষয়ক সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিপন ভোটের লড়াইয়ে নামার ইচ্ছা প্রকাশ করার পর কে হয় বিএনপির প্রার্থী তা নিয়ে নানা জল্পনা কল্পনা তৈরি হয়।

তাবিথ আউয়াল বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য। তার বাবা ধনকুবের ব্যবসায়ী আবদুল আউয়াল মিণ্টু বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা। ২০১৫ সালের এপ্রিলের ভোটে মিণ্টুকেই প্রথমে প্রার্থী করেছিল বিএনপি। কিন্তু আইনি জটিলতায় তার প্রার্থিতা বাতিল হয়। পরে তার ছেলে তাবিথকে সমর্থন দেয় দলটি। ওই নির্বাচন দলীয় প্রতীকে হয়নি। তবে ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত আনিসুল হকের মৃত্যুতে ফাঁকা হওয়া মেয়র পদ পূরণে ভোট হবে দলীয় প্রতীকে।

সোমবার রাত ৯টা ৪০ মিনিটে গুলশান কার্যালয়ে মনোনয়ন বোর্ডের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। মনোনয়ন বোর্ডে সভাপতিত্ব করেন খালেদা জিয়া। পদাধিকার বলে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ স্থায়ী কমিটির সদস্যরা মনোনয়ন বোর্ডের সদস্য হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে রাত সাড়ে ৮টায় মেয়র পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী পাঁচ প্রার্থী গুলশান কার্যালয়ে প্রবেশ করেন। তারা হলেন- দলের বিশেষ সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন, সাবেক সাংসদ মেজর (অব) আখতারুজ্জামান, সহ-প্রকাশনাবিষয়ক সম্পাদক শাকিল ওয়াহেদ সুমন, নির্বাহী কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল ও ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এম এ কাউয়ুমের পক্ষে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বজলুল বাসিত আঞ্জু।

বোর্ডে আরও উপস্থিত ছিলেন ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, লে. জেনারেল (অব) মাহবুবুর রহমান, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান এবং আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

 

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে