কবর থেকে ২৭ কঙ্কাল চুরি!

  ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

১৩ মার্চ ২০১৮, ২০:৫১ | আপডেট : ১৩ মার্চ ২০১৮, ২০:৫৪ | অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার ভাংগনামারী ইউনিয়নের কুলিয়ারচর ও গজারিয়া গ্রামে গত এক সপ্তাহে অন্তত ২৭টি কবর থেকে কঙ্কাল চুরির ঘটনা ঘটেছে।

ঘটনায় গ্রামবাসীর মধ্যে ক্ষোভ ও আতঙ্ক বিরাজ করছে। এই ঘটনার পর গ্রামের লোকজন এখন রাত জেগে কবরস্থানগুলো পাহারা দিচ্ছেন।

গজারিয়া গ্রামের বাসিন্দা আবুল হাসান বাচ্চু জানান, তার মা নূরজাহান বেগম মারা গেছেন দেড় বছর আগে। প্রায়ই মায়ের কবরের পাশে গিয়ে মোনাজাত করেন। কিন্তু গত সোমবার কবরের পাশে গিয়ে দেখেন কবরের মাথার দিকে ২ থেকে ৩ ফুট খালি। এরপর কয়েকজনকে নিয়ে কবর খুড়ে নিশ্চিত হন তার মায়ের কঙ্কাল চুরি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

গৌরীপুর উপজেলার ভাংগনামারী ইউনিয়নের পাশাপাশি দুই গ্রাম কুলিয়ারচর ও গজারিয়া গ্রামে বেশ কয়েকটি কবরস্থানের মাটি এলোমেলো দেখে স্থানীয়দের সন্দেহ হয়। বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার জন্য গত সোমবার কয়েকটি কবর খুড়ে দেখা যায় ভেতরে মরদেহ নেই। পরে পর্যায়ক্রমে অন্যান্য কবর খুড়ে ২৭টি কঙ্কাল চুরির বিষয়টি জানা যায়।     

গজারিয়া গ্রামের আব্দুর রাজ্জাক জানান, তার ভাই চান মিয়া ও বোন সালেহার কবর থেকে কঙ্কাল চুরি হয়েছে।

এভাবে কবর থেকে কঙ্কাল চুরি হওয়ায় আতঙ্কিত গ্রামবাসী দল বেধে রাতে কবরস্থান পাহারা দিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আব্দুল বারেক।

তিনি জানান, ‘স্বজনদের মরদেহ কবরে আছে এই বিশ্বাসেই গ্রামবাসী নিশ্চিত থাকেন। কিন্তু একটি চক্র কবর থেকে কঙ্কাল চুরি করছে বিষয়টি জেনেই আমরা ব্যথিত হয়েছি। আমরা এর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

ভাংগনামারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মফিজ নূর খোকা বলেন, ‘বিষয়টি আমি জেনেছি। মেডিকেলের শিক্ষার্থীদের কাছে কঙ্কাল বিক্রির জন্য একটি চক্র ওই এলাকায় কবর থেকে কঙ্কাল চুরি করছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে জানিয়েছি জড়িতদের ধরে আইনের আওতায় আনার জন্য। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকেও (ইউএনও) অবগত করা হয়েছে। চক্রটি ধরতে সব ধরনের চেষ্টা অব্যহত আছে।’

অন্যদিকে গ্রামবাসীর অভিযোগ কঙ্কাল চুরির সঙ্গে জড়িতদের ধরতে পুলিশ পদক্ষেপ নিচ্ছে না।

গৌরীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হোসেন জানান, ‘আমি বিষয়টি শুনেছি। এখন পর্যন্ত কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। তবুও চক্রটি ধরতে আমাদের চেষ্টা অব্যহত আছে।’

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে