শেষ পর্যন্ত না ফেরার দেশে রাজীব

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৭ এপ্রিল ২০১৮, ০২:৩৬ | আপডেট : ১৭ এপ্রিল ২০১৮, ১৩:১৮ | অনলাইন সংস্করণ

হাতটা জোড়া না লাগাতে পারলেও চিকিৎসকরা ধারণা করেছিলেন সুস্থ হয়ে উঠবেন দুই বাসের রেষারেষিতে হাত হারানো রাজীব হোসেন। কিন্তু ক্রমশ অবনতির দিকে যাচ্ছিল তার শারীরিক অবস্থা । শেষ পর্যন্ত পারলেন না সুস্থ হতে। চলে গেলেন না ফেরার দেশে।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় গতকাল সোমবার দিবাগত রাত ১২টা ৪০ মিনিটে মৃত্যু হয় মহাখালীর তিতুমীর কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র রাজীব হোসেনের।

রাজীবের চাচা আল আমিন বিষয়টি নিশ্চিত করে দৈনিক আমাদের সময়কে বলেন, 'রাত ১১টা ৩০ মিনিটের দিকে হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. রেজা আমাদের জানিয়েছেন যে রাজীবের শারীরিক অবস্থা অবনতির দিকে যাচ্ছে। এ খবর পেয়ে আমরা হাসপাতালে আসি। পরে রাত ১২টা ৪০ এর দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন আইসিইউর চিকিৎসকরা।'

হাসপাতালে রাজীবের চাচা ছাড়াও তার মামা জাহিদুল ইসলাম ও খালাতো বোন রাবেয়া উপস্থিত ছিলেন।

ঢামেক পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) বাচ্চু মিয়া বিষয়টি দৈনিক আমাদের সময়কে নিশ্চিত করে বলেন, 'রাত সাড়ে এগারোটার দিকে হাত হারানো রাজীবের অবস্থার অবনতির কথা শুনতে পেয়ে আমি হাসপাতালে আসি। পরে আইসিইউর চিকিৎসকরা তাকে রাত ১২টা ৪০ মিনিটে মৃত ঘোষণা করেন।'

গত ৩ এপ্রিল রাজধানীর কারওয়ান বাজারে পান্থকুঞ্জ পার্কের সামনে বিআরটিসি বাসের সঙ্গে স্বজন পরিবহনের একটি বাসের রেষারেষিতে বাস দুটির মাঝে পড়ে রাজীবের ডান হাত। পরে হাতটিই বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। তাকে তাৎক্ষণিক নিকটস্থ হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও পরদিন ঢামেকে নিয়ে আসা হয়। সেখানে সরকারের তত্ত্বাবধানে তার চিকিৎসা চলছিল।

 

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে