• অারও

মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধ, পুলিশসহ আহত ৪

  নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

১৭ এপ্রিল ২০১৮, ১৮:২০ | অনলাইন সংস্করণ

প্রতীকী ছবি
নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় পুলিশের সঙ্গে মাদক ব্যবসায়ীদের বন্দুকযুদ্ধ হয়েছে। এসময় লিখন মিয়া নামে এক যুবককে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় তিন পুলিশ কর্মকর্তা আহত হয়েছেন।
 
আজ মঙ্গলবার ভোর পৌনে ৪টায় সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার কুতুবপুর ইউনিয়নের পাগলা নিশ্চিন্তপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
 
ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঞ্জুর কাদের জানান, ‘ভোর পৌনে ৪টার দিকে কুতুবপুর ইউনিয়নের পাগলা নিশ্চিতপুর এলাকায় মাদক ও সন্ত্রাস বিরোধী বিশেষ অভিযান চালানোর সময় পাঁচ থেকে ছয় জন যুবকের জটলা দেখে পুলিশের টহল টিম এগিয়ে যায়। এসময় সন্ত্রাসীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে গুলি ও ককটেল ছুঁড়ে। পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছুঁড়ে। দু’পক্ষের বন্দুকযুদ্ধের সময় সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে পায়ের হাঁটুতে ও উরুতে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় লিখন মিয়া নামের এক যুবককে আটক করে। এসময় তার কাছ থেকে ৪২০ পিছ ইয়াবা ও দুই রাউন্ড গুলিসহ একটি বিদেশী রিভলবার উদ্ধার করা হয়।’
 
ওসি বলেন, ‘লিখনকে গুরুতর অবস্থায় শহরের খানপুর এলাকায় ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখান থেকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়। গুলিবিদ্ধ লিখন ফতুল্লা থানার পাগলা নিশ্চিতপুর এলাকার তোতা মিয়ার ছেলে।’
 
পুলিশ কর্মকর্তা মঞ্জুর কাদের জানান, ‘এই ঘটনায় ফতুল্লা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাফিউল আলম, সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) তাজুল ইসলাম তারেক ও কনস্টেবল রোকনুজ্জামান আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় কনস্টেবল রোকনুজ্জামানকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্য দু’জনকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।’
 
ওসি আরও জানান, ‘গুলিবিদ্ধ লিখন এলাকার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ও চিহ্নিত সন্ত্রাসী। তার বিরুদ্ধে রাজধানীর শ্যামপুর থানাসহ নারায়ণগঞ্জ জেলার বিভিন্ন থানায় সন্ত্রাসী, মাদক ও অস্ত্র আইনে সাতটি মামলা রয়েছে।’
 
এ ঘটনার ব্যাপারে পরবর্তীতে তার বিরুদ্ধে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে