জনপ্রিয় হচ্ছে অর্গানিক পদ্ধতিতে আম চাষ

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২০ মে ২০১৮, ১২:৩৩ | আপডেট : ২০ মে ২০১৮, ১৫:১৫ | অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় অর্গানিক পদ্ধতিতে আম উৎপাদন দিনকে দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। কোনো রাসায়নিক ব্যবহার ছাড়াই কিছু প্রতিষ্ঠান এ পদ্ধতিতে আম উৎপাদন করছে। এছাড়া তারা অনলাইনে বুকিংয়ের মাধ্যমে ভোক্তার কাছে আম পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থাও রেখেছে।

২০১০ সাল থেকে এ পর্যন্ত রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে কিন ইয়ার্ড'স নামের একটি উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান মোট ৬৫ বিঘার পাঁচটি অর্গানিক আম বাগান তৈরি করেছে। যেখানে আম উৎপাদনে কোনো রাসায়নিক সার বা কোনো বালাইনাশক প্রয়োগ করা হয় না।

ওইসব বাগানের পরিচর্যাকারীরা জানান, সেখানে পোকা দমনে সাবান পানি, আলোর ফাঁদ, ফেরোমন ফাঁদ ও নিম পাতার পানি ব্যবহার করা হয়। আর রাসায়নিকের পরিবর্তে ব্যবহার করা হয় জৈব সার।

এ বিষয়ে কিন ইয়ার্ড'সের উদ্যোক্তা মুমিনুল সিদ্দিকী জানান, ভোক্তাদের কাছে বিষমুক্ত আম পৌঁছে দিতেই তাদের এ উদ্যোগ। অনলাইনে বুকিং নিয়ে মাত্র তিন দিনেই কুরিয়ারের মাধ্যমে ভোক্তাদের কাছে তারা আম পৌঁছে দেন। এ বছর আম পৌঁছানো শুরু হবে ৫ জুন থেকে।  

তিনি আরও জানান, ২০১০ সালে তারা কেবল সিলেটে আম সরবরাহ করতেন। এখন তা পর্যায়ক্রমে ঢাকা, বরিশাল ও চট্টগ্রামে বিস্তৃত হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে রাজশাহী ফল গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. আলিম উদ্দিন আমাদের সময়কে বলেন, 'একটা সচেতন মহলে এই পণ্যের বেশ চাহিদা রয়েছে। যদি যথাযথ মনিটরিংয়ের আওতায় এভাবে অর্গানিক কোনো ফসল উৎপাদন করা যায় তাহলে এটির একটা ভালো বাজার হবে।'

রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে আম সংগ্রহ শুরু

রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ এলাকায় উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী  আজ থেকে গুটি আম পাড়া শুরু হচ্ছে। জুনের শুরুতে হিমসাগর, ক্ষীরশাপাতি ও ল্যাংড়া আম বাজারে আসবে। রুপালী ও ফজলি আম বাজারে আসবে জুন মাসের মাঝামাঝি সময়ে।

রাজশাহী জেলায় এবার সাড়ে সতের হাজার হেক্টর জমিতে আম চাষ হচ্ছে। এ জেলায় উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২ লাখ ৮ হাজার ৬৬৪ মেট্রিক টন। আর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে আড়াই লাখ মেট্রিকটনেরও বেশি।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে