'আমি বলব, বাহ্! কি সুন্দর!'

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ জুন ২০১৮, ২০:৩৯ | অনলাইন সংস্করণ

রাজধানীর লালবাগ এলাকায় মাদকের বিরুদ্ধে মানুষের সচেতনতা ও সামাজিক মুল্যবোধ বাড়ছে দেখে এলাকাবাসীর প্রশংসা করেছেন বিশিষ্ট লেখক ও অধ্যাপক জাফর ইকবাল।

আগামীতে লালবাগ যেন এ বিষয়ে পুরো ঢাকার জন্যে রোল মডেল হতে পারে এমন আশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘আগামীতে পুরো এলাকা মাদকশূণ্য দেখতে চাই। তখন আমি বলব, বাহ! কি সুন্দর! লালবাগ কতো ভাল!’

আজ মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর আজিমপুর গভর্মেন্ট গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের অডিটোরিয়ামে ‘মাদক ছেড়ে সুপথে ফেরা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে জাফর ইকবাল এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) লালবাগ বিভাগ।

লালবাগ এলাকার প্রায় দেড়শ মাদকআসক্তকে নিরাময় ও কাউন্সিলিং মাধ্যমে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে এনেছে ডিএমপির লালবাগ বিভাগ। এ উপলক্ষ্যে অনুষ্ঠানে ওই সব ব্যক্তিদের হাতে ফুল তুলে দেন লালবাগ বিভাগের ছয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা। এসময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ডিএমপির কমিশনার আসাদুজ্জামান মিয়া সহ বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাফর ইকবাল।

মাদকের বিরুদ্ধে লালবাগ এলাকার জনসাধারনের মধ্যে এরকম সচেতনতায় মুগ্ধ হয়ে এলাকাবাসীর উদ্দেশে জাফর ইকবাল বলেন, ‘এবার আসলাম। দেড়শজনকে দেখলাম মাদক ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে এসেছেন। আশা করি আগামী বছরেও এই অনুষ্ঠান হবে। আমি আবার আসব। দেখতে চাই সম্পুর্ণ লালবাগ মাদকশুন্য। আমি বলব, বাহ! কি সুন্দর! লালবাগ কতো ভাল! আর অন্যদেরকে বলব, দেখ লালবাগ পেরেছে। তোমরাও পারবে।’

'এই প্রথম পুলিশ মাদকসেবীদের আসামী হিসেবে দেখছে না, বরং সহানুভুতির চোখে দেখছে' দেখে অবাক হন প্রবীণ এই বিজ্ঞানী। তিনি বলেন, ‘এমন সামাজিক প্রচেষ্টার জন্যে পুলিশ বাহিনীকে ধন্যবাদ জানাই পেশাদারিত্বের বাইরে এমন সামাজিক উদ্যোগ আসলেই প্রসংশণীয়।’

জাফর ইকবাল আরও বলেন, ‘পুলিশেরাই আসলে ভালভাবে জানেন যে, এলাকার কোন বাড়িতে কে মাদকসেবী। সুতরাং, তারা যদি চায় মাদকসেবীদের অপরাধী হিসেবে না দেখে সামাজিক উদ্যোগে স্বাভাবিক জীবন দান করতে পারে। পুলিশ একা পারবে না। সেজন্যে লালবাগের মতো এলাকাবাসীদেরকেও এগিয়ে আসতে হবে। তাহলেই একটি এলাকা সম্পূর্ণ মাদকমুক্ত হবে।’

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে