ঈদযাত্রায় নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা শিমুলিয়া ঘাট

  তাহ্মিদ (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি

১৩ জুন ২০১৮, ১৩:৩৭ | আপডেট : ১৩ জুন ২০১৮, ১৩:৪১ | অনলাইন সংস্করণ

প্রতি বছরের মতো এবারও ঈদযাত্রায় নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা রয়েছে মুন্সীগঞ্জে লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া ঘাট। ঈদুল ফিতর উপলক্ষে যাত্রীসেবা নিশ্চিত করতে শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দি নৌরুটে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।  

জানা গেছে, ওই ঘাটে ইতিমধ্যে তিন শতাধিক পুলিশ সদস্য মোতায়ন করা হয়েছে। যাত্রীদের নির্বিঘ্নে পারাপারে নিরাপত্তা দিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিভিন্ন সদস্য বিশেষ করে র‌্যাব, আনসার ও স্কাউটসহ ডাক্তাররা কাজ করছেন।

ঈদ উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সভা করে জনসচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে যাত্রীদের সেবা দেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়া অতিরিক্ত যাত্রী বহন বন্ধ করতে মোবাইল কোর্টের সার্বক্ষণিক ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে। অন্যদিকে অতিরিক্ত ভাড়া যাতে যাত্রীদের কাছ থেকে আদায় করা না হয় সেদিকে লক্ষ রাখা হচ্ছে। যানজট এড়াতে ট্রাক পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

জেলা প্রশাসক সায়েলা ফারজানা বলেন, শিমুলিয়া ঘাটে সিসিটিভি ক্যামেরাসহ তিন স্তরের পুলিশি নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে। এ ছাড়া ওয়াচ টাওয়ার ও পুলিশ কন্ট্রোল রুম রয়েছে। যাত্রীদের কাছ থেকে কোনো প্রকার অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করলে তৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ধারণ ক্ষমতার বাইরে অতিরিক্ত যাত্রী বহন করলে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানাসহ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এবারের ঈদে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো রকম দুর্নীতি কিংবা অবহেলা ছাড় দেওয়া হবে না বলেও জানান জেলা প্রশাসক।

মুন্সীগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার মো. জায়েদুল আলম পিপি এম জানান, ঈদের সময় নৌ ডাকাতি ও দুর্ঘটনা বৃদ্ধি পায়। এসব ঘটনা মোকাবেলা করতে সর্বদা তৎপর থাকতে হবে পুলিশকে। শিমুলিয়া ঘাট থেকে ৮৭টি লঞ্চ চলাচল করবে। প্রত্যেকটি লঞ্চের ফিটনেস সার্টিফিকেট, সার্ভে, রুট পারমিট ঠিক থাকবে।

বর্তমানে নদীতে চলাচলে কোনো সমস্যা নেই জানিয়ে তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত নাব্যতা সংকট সমস্যা হয় নাই। ড্রেজিং কার্যক্রম চলমান রয়েছে। এ ছাড়া দেশের দক্ষিণবঙ্গের ২১ জেলার প্রবেশদ্বার হিসেবে পরিচিত শিমুলিয়া-কাওড়াকান্দিতে ঈদে ঘরমুখো যাত্রীরা নানা বিপত্তির মুখে পড়ে। তারা যাতে নির্বিঘ্নে পারাপার করতে পারে, সেজন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।

লঞ্চ মালিক সমিতির ও মেদিনী মন্ডল আওয়ামী লীগ নেতা মো. শাহিন বলেন, ‘জেলা প্রশাসন এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা কাজ করব, অনিয়ম কিংবা অসতর্কতা থেকে দূরে থাকব। গত বছরের তুলনায় ঘাটে এবার জনসচেতনতা বৃদ্ধি করা হয়েছে।’

বিআইডব্লিউটিসি শিমুলিয়া ঘাট এজিএম (বাণিজ্য) মো. খালিদ নেওয়াজ জানান, ঈদকে সামনে রেখে প্রতি বছরের মতো এবারও বিআইডব্লিউটিসি প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। ১৬ টি ফেরি দিয়ে পারাপার চলছিল। ঈদকে সামনে রেখে এই বহরে চারটি ফেরি যুক্ত হচ্ছে। এবার মোট ২০টি ফেরি দিয়ে পারাপার চলছে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে
ashomoy-todays_most_viewed_news