ঈদের দ্বিতীয় দিনে সড়কে ঝরল ১০ প্রাণ

  অনলাইন ডেস্ক

১৭ জুন ২০১৮, ২০:৪৪ | আপডেট : ১৮ জুন ২০১৮, ০১:০৪ | অনলাইন সংস্করণ

প্রতীকী ছবি
ঈদের দ্বিতীয় দিন আজ রোববার দেশের পাঁচটি জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় অন্তত ১০ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও কয়েজন। 

আমাদের সময়ের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে জানা যায়, টাঙ্গাইলে তিনজন, নোয়াখালীতে তিনজন, ঠাকুরগাঁওয়ের দুজন, কক্সবাজার ও পাবনায় একজন করে নিহত হয়েছে।  

টাঙ্গাইল
টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার হাতিয়া এলাকায় ঢাকা-টাঙ্গাইল বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে বাসচাপায় তিন মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছে। আজ দুপুর আড়াইটার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। তবে নিহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। 

এ বিষয়ে বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোশারফ হোসেন জানান, দুপুরে ঢাকা-বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্ব মহাসড়কের হাতিয়া এলাকায় বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্বগামী একটি লোকাল বাসের চাপায় ঘটনাস্থলেই টাঙ্গাইলগামী একটি মোটরসাইকেলের তিন আরোহী নিহত হয়েছেন। ওই বাসটিকে জব্দ করা হয়েছে। লাশ তিনটি উদ্ধার করে থানায় রাখা হয়েছে। পরিচয় সনাক্ত হলে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে। 

নোয়াখালী
নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী পৌরসভায় যাত্রীবাহী বাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মধ্যে মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে দুই ভাইসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। এতে আহত হয়েছেন আরেকজন। আজ সকাল সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা-নোয়াখালী সড়কের সোনাইমুড়ী পৌরসভার রামপুর ক্লাবের সামনে এই দুর্ঘটনা ঘটে। 

নিহতরা হলেন পৌরসভার কাঁঠালিয়া গ্রামের দুই ভাই বেলাল হোসেন (৪৫) ও মিজানুর রহমান (৩৭) এবং একই এলাকার সিএনজিচালক রাকিব হোসেন (৩৫)। আহত ব্যক্তির নাম পরিচয় জানা যায়নি।

জানা গেছে, আজ সকালে আত্মীয়ের বাড়িতে যাওয়ার জন্য সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে সোনাইমুড়ী বাজার থেকে যাত্রা করেন বেলাল ও মিজান। পথে তাদের অটোরিকশাটি রামপুর ক্লাবের সামনে পৌঁছালে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা হিমাচল সার্ভিসের একটি যাত্রীবাহী বাস সেটিকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে দুজন ও পরে হাসপাতাল নেওয়ার পথে আরেকজন নিহত হন। এতে আহত এক যাত্রীকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

সোনাইমুড়ী থানার ওসি মো. নাছিম উদ্দিন বলেন, সড়ক দুর্ঘটনার পর উত্তেজিত জনতা সোনাইমুড়ী লাকসাম সড়ক প্রায় দুই ঘণ্টা অবরোধ করে রাখে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়।  

ঠাকুরগাঁও 
ঠাকুরগাঁও রোড় এলাকার মথুরাপুরে বাস-মোটরসাইলে মুখোমুখী সংঘর্ষে দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। তারা হলেন সদর উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের পারপুগী গ্রামের ফারুক ও কাউসার। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন  মোটরসাইকেলের আরেক আরোহী। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আজ বিকেল ৩টার দিকে ঠাকুরগাঁও রোড মথুরাপুর এলাকা দিয়ে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার দিকে যাচ্ছিলেন ওই তিন মোটরসাইকেল আরোহী। এ সময় বিপরীত দিক আসা মিনিবাসের সঙ্গে মুখোমুখী সংঘর্ষ হলে দুজন নিহত হন। এ ঘটনায় আহত রবিউলকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
কক্সবাজার
ক্ক্সবাজার সদর উপজেলার খুরুশকুল ইউনিয়নে সিএনজিচালিত চালিত অটোরিকশার ধাক্কায় বাবু দে (১৬) নামের এক কিশোর নিহত হয়েছে। আজ রোববার বেলা আড়াইটার দিকে ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব হিন্দু পাড়ায় সড়ক দুর্ঘটনাটি ঘটনা ঘটে। 

কক্সবাজার সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আতিক উদ্দিন বলেন, বাবু দে বাড়ি থেকে বের হয়ে খুরুশকুল টাইম বাজারের দিকে যাচ্ছিল। এ সময় দ্রুতগামী একটি অটোরিকশা পেছন থেকে তাকে ধাক্কা দেয়। সেখান থেকে আহত অবস্থায় তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।
 
কক্সবাজার সদর থানার ওসি ফরিদ উদ্দিন খন্দকার বলেন, নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। 
 
পাবনা 
পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার আতাইকুলা বাজারে পাবনা-ঢাকা সড়কে সিজান পরিবহনের একটি বাসের চাপায় পথচারী মজির উদ্দিন (৮০) নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় একরাম (৪০) নামের আরেকজন আহত হন। আজ সকাল ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।  

আতাইকুলা থানার ওসি মাসুদ রানা স্থানীয়দের বরাত দিয়ে জানান, পাবনাগামী যাত্রীবাহী সিজান পরিবহনের একটি বাস দুই পথচারীকে চাপা দিলে মজির উদ্দিন ঘটনাস্থলেই নিহত হন। গুরুতর আহত অবস্থায় একরামকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা পাবনা হাসপাতালে পাঠায়। 

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে