‘চোলাই মদ খাব না, বানাব না, বেঁচবো না’

  নবাবগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি

১২ জুলাই ২০১৮, ২২:৪১ | অনলাইন সংস্করণ

প্রতীকী ছবি

ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলার শোল্লা ইউনিয়নের রূপারচর এলাকার চিহ্নিত ১৫ মাদক ব্যবসায়ী স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে প্রশাসনের কাছে আত্মসমর্পন করেছেন।

আজ বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৫টায় রূপারচর বাজারে ‘শোল্লা ইউনিয়ন পুলিশিং সেল’ আয়োজিত জঙ্গি, সন্ত্রাস ও মাদক বিরোধী মতবিনিময় সভায় তারা আত্মসমর্পণ করেন।

ঢাকা জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ-দক্ষিণ) মাছুম আহমেদ ভূইয়া ও নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তোফাজ্জল হোসেন স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসায় তাদেরকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন।

আত্মসমর্পনকারীরা হলেন— রূপারচরের আলিমউদ্দিনের ছেলে রবিউল মিয়া, রবিউলের ছেলে রতন মিয়া ও সুজন, শহর আলীর ছেলে মো. নুরু, নুরুর ছেলে মহর, টুটুল ও মহিল, মহিলের স্ত্রী সেলিনা, কাশেদের স্ত্রী জুসনি, আকমতের স্ত্রী সাহেদা, এলাহী মোল্লার ছেলে আবদুল খালেক, আবদুল মালেক, আবুল শেখের ছেলে লাল চাঁন, নুরুল হক  বেপারীর ছেলে হবি, হবির ছেলে নজরুল মিয়া।

এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আত্মসমর্পনকারীদের ‘চোলাই মদ খাব না, বানাবো না, বেঁচবো না’ বলে শপথ বাক্য পাঠ করান। আত্মসমর্পনকারীরা আজ থেকে সব ধরনের বাংলা মদ তৈরি, মাদক বিক্রি ও সেবন থেকে নিজেদের বিরত রাখার শপথ নেন। প্রশাসনের পক্ষ থেকেও তাদের সব ধরনের সহযোগিতারও আশ্বাস দেওয়া হয়।

আত্মসমর্পনকারী মো. নুরু বলেন, ‘আজ থেকে আমরা এই রূপারচরে মদ বানামু না, বেচমু না আর কাউকে বানাতে দিমু না।’

স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসা জুসনি বেগম বলেন, 'আমরা এখন থেকে মদের ব্যবসা করুম না। ভাল হয়ে যামু। মাদক জীবনে কোনো শান্তি নাই।'

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাকা জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ-দক্ষিণ) মাছুম আহমেদ ভূইয়া বলেন,  'বর্তমান সরকার মাদকের ব্যাপারে জিরো ট্রলারেন্স দেখাচ্ছে। দেশে মাদক নির্মূলে চিরুনী অভিযান চলছে। আজ যারা শপথ নিলেন তাদের সাধুবাদ জানাচ্ছি। সৎ পথে চলুন, সরকারের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়া হবে। তবে কেউ এরপর মাদক ব্যবসা করলে তাদের ছাড় দেওয়া হবে না।

নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তফা কামাল বলেন, 'আজ রূপারচরের ১৫ জন মাদক ব্যবসায়ী স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছে। আশা করি বাকিরাও তাদের পথ ধরে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবেন। আর যেন রূপারচরে মদ তৈরি বা বিক্রি না হয় সবাইকে সেই দিকে খেয়াল রাখতে হবে। ঘরে ঘরে আর যেন মদের গন্ধ পাওয়া না যায়।'

শোল্লা ইউপি চেয়ারম্যান দেওয়ান তুহিনুর রহমান তুহিনের সভাপতিত্বে এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন— উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাসিরউদ্দিন আহমেদ ঝিলু, কৈলাইল ইউপি চেয়ারম্যান পান্নু মিয়া, শায়েস্তা ইউপি চেয়ারম্যান মুসলেম উদ্দিন চোকদার, নবাবগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আজহারুল হক, শোল্লা ইউপি সদস্য মো. রুবেল মিয়া, চান্দহর ইউপি সদস্য খালেদ রেজা প্রমুখ।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে