সাংবাদিকদের ওপর হামলাকারীদের খুঁজতে পুলিশের স্বদিচ্ছার অভাব

  বিশ্ববিদ্যলিয় প্রতিবেদক

১০ আগস্ট ২০১৮, ১৪:০০ | আপডেট : ১০ আগস্ট ২০১৮, ১৭:২৭ | অনলাইন সংস্করণ

সাংবাদিকদের ওপর হামলার প্রতিবাদে আজ শুক্রবার সকাল ১১ টায় জাতীয় জাদুঘরের 'আমরা গণমাধ্যমকর্মী' এর ব্যানারে এক প্রতিবাদ কর্মসূচী পালন করেন সাংবাদিকরা। সেখানে বক্তরা গণমাধ্যমকর্মীদের ওপর হামলাকারীদে খুঁজে বের করতে ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর স্বদিচ্ছার অভাব রয়েছে বলে উল্লেখ করেন।

প্রতিবাদ কর্মসূচীতে ইনডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের অ্যাসাইনমেন্ট এডিটর পারভেজ খান বলেন, ‘আমরা চাই সাংবাদিকদের ওপর হামলার সুনির্দিষ্ট একটা বিচার হোক। আজ পর্যন্ত এ ধরণের ঘটনার কোনো বিচার আমরা পাইনি। এসব ঘটনা অনেক সময় আপোষ বা দুঃখ প্রকাশ এসবের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে।’ বিচার না হওয়ার কারণে আজ এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

পারভেজ খান আরও বলেন, ‘হামলাকারীরা পুলিশ নাকি কোনো দলীয় সংগঠনের কর্মী সেটা আমাদের কাছে মুখ্য নয়। আমাদের উপর যারা হামলা ও পেশাগত কাজে যারা বাঁধা দিয়েছে, তাদের দুর্বৃত্ত ও সন্ত্রাসী হিসেবে দেখা হোক। তাদের দলীয় পরিচয় যাই হোক না কেন বিচারের আওতায় আনা হোক। আমরা আশাবাদী সরকার এখানে একটা স্বদিচ্ছার বহিঃপ্রকাশ ঘটাবে এবং খুব দ্রুত তাদের গ্রেপ্তার করবে।’

দীপ্ত টিভির বিশেষ প্রতিনিধি বায়েজিদ আহমেদ বলেন, ‘নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের সময় সরকারের ভাষায় যারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছে, উস্কানি দিয়েছে তাদের যেমন আইনের আওতায় আনা হয়েছে। আমরা মনে করি পেশাগত দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে গণমাধ্যমকর্মীরা যেসব সন্ত্রাসী ও দুর্বৃত্তদের দ্বারা নির্যাতিত, নিষ্পেষিত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী তাদের চিহ্নিত করে বিচার করবেন।’

তিনি বলেন, ‘স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং গোয়েন্দা সংস্থার সবাই জানে এই সন্ত্রাসীরা কারা। এরা চিহ্নিত সন্ত্ররাসী। গোয়েন্দা সংস্থা এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর যদি স্বদিচ্ছা থাকে, তাহলে খুব সহজেই তারা এদের চিহ্নিত করতে পারবে। কিন্তু আমাদের মনে হচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর স্বদিচ্ছার অভাব রয়েছে গণমাধ্যমকর্মীদের ওপর কারা হামলা করেছে তা খুঁজে বের করার এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়ার ক্ষেত্রে।’

প্রতিবাদ কর্মসূচিতে বাংলাভিশনের সিনিয়র রিপোর্টার এস এম ফয়েজ, মাছরাঙা টেলিভিশনের সিনিয়র রিপোর্টার জাহেদ সেলিম, প্রথম আলোর ফটোগ্রাফার সাজিদ হোসেনসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে