গোসলখানা থেকে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

  ঝিনাইগাতী প্রতিনিধি

১০ আগস্ট ২০১৮, ২১:৪২ | অনলাইন সংস্করণ

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলায় সালমা বেগম (১৯) নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার বিকেলে স্বামীর বাড়ির গোসলখানা থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়।

সালমা ঝিনাইগাতীর খৈলকুড়া গ্রামের বাবুল মিয়ার স্ত্রী এবং গজারীকুড়া গ্রামের ছামিউল হকের মেয়ে। বাবুল-সালমা দম্পতির ছয় মাসের একটি কন্যা শিশু রয়েছে। এ ঘটনার পর থেকে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন পলাতক রয়েছে।  

স্থানীয় কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রায় দুই বছর আগে উপজেলার খৈলকুড়া গ্রামের বাবুল মিয়ার সঙ্গে সালমার বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের সঙ্গে সালমার পারিবারিক কলহ চলছিল।  

আজ বিকেল ৩টার দিকে প্রতিবেশিরা বাবুলের বাড়ির গোসলখানার ভিতরে সালমাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন। খবর পেয়ে ঝিনাইগাতী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. কামাল হোসেন গিয়ে গোসলখানার দরজা ভেঙে সালমার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেন।

ওই সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন কৌশলে পালিয়ে যায়। পরে এলাকাবাসী সালমাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সালমা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

সালমার বাবা ছামিউল হক অভিযোগ করে বলেন, ‘স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন আমার মেয়েকে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রেখেছে। এ ঘটনায় আমি থানায় মামলা করব।’  

ঝিনাইগাতী থানার এসআই কামাল হোসেন বলেন, ‘এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত থানায় কেউ অভিযোগ দেয়নি। সুরতহাল প্রতিবেদনে সালমার গলায় রশির আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। তবে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ নির্ণয়ে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।’

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে