জানালেন নির্বাচন কমিশনার

ইভিএমের বিধান রেখে সংসদে উঠবে সংশোধিত আরপিও

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৯ আগস্ট ২০১৮, ২১:০৮ | অনলাইন সংস্করণ

নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম। পুরোনো ছবি

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) সংশোধনীর কাজ চলমান আছে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম। তিনি বলেন, ‘সংসদ নির্বাচনে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করার বিষয়টি যুক্ত করে তা পাস করার জন্য সংশোধিত আরপিও আগামী সংসদ অধিবেশনে তোলার জন্য কাজ চলছে।’

আজ রোববার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে নির্বাচন কমিশনার এসব কথা বলেন।

কবিতা খানম বলেন, ‘কিছুদিন পরই বসবে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের শেষ অধিবেশন। আরপিও সংশোধন করতে হলে এই অধিবেশনেই প্রস্তুাব তুলতে হবে। আরপিও পর্যালোচনার মধ্যেই আছে। কমিশনের কিছু পরামর্শ ছিল, অবজারভেশন ছিল। সেগুলোর ওপর ভিত্তি করে আমরা আজকে একটা সভা ডেকেছিলাম, কিন্তু সেটা করা সম্ভব হয়নি। দশম জাতীয় সংসদের শেষ অধিবেশনে আমরা সেটা তুলে ধরার চেষ্টা করব।’ 

নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করতে হলে তা আরপিওতে সংযুক্ত করতে হবে। তারপর কমিশন সিদ্ধান্ত নেবে জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করবে কি না। ব্যবহার করলেও তা কতটুকু পরিসরে ব্যবহার করা হবে, সেটাও কমিশন পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নেবে।’

কবিতা খানম বলেন, ‘জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম বাড়াতে হলে আমাদের সক্ষমতা বাড়াতে হবে। সক্ষম জনবল লাগবে, ভোটারদের শিক্ষা, স্টেকহোল্ডারদের আস্থার ব্যাপার আছে। আরপিওতে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার পর যদি কমিশন সিদ্ধান্ত নেয় জাতীয় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করবে, তাহলে পরবর্তীতে দক্ষ জনবলসহ প্রয়োজনীয় এই পদক্ষেপগুলো নেওয়া হবে।’

কবিতা খানম আরও বলেন, ‘রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে প্রশাসনের লোকবলের (জেলা প্রশাসক) পাশাপাশি নির্বাচন কমিশনের নিজস্ব কর্মকর্তাদের নিয়োগের বিষয়টিও সম্পূর্ণ কমিশনের সিদ্ধান্তের বিষয়। এসব বিষয় নিয়ে আমরা এখনো সক্রিয়ভাবে চিন্তা-ভাবনা করছি না। ঈদের পর কমিশনের বৈঠক আছে। তখন আলোচনা করা হবে। মৌলিক আইনি কাঠামোতে ইভিএম ঢোকানোর বিষয়টি আমরা দেখবো। অনলাইনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার বিষয়টিও রয়েছে।’

ভোটকেন্দ্রের বিষয়ে নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘ভোটকেন্দ্র বাছাই শেষ হয়েছে। আপত্তির ওপর শুনানি হবে। আজ আপত্তি দেওয়ার শেষ দিন। ৪০ হাজারের মতো তালিকা আছে। বাড়বে কি না, পরে জানা যাবে।’

নির্বাচন কমিশনারদের মধ্যে কোনো মতবিরোধ নেই উল্লেখ করে কবিতা খানম বলেন, ‘আমাদের মধ্যে মতবিরোধ বলতে কিছু নেই। কেননা, সংখ্যাগরিষ্ট মতামতের ভিত্তিতেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা সংবিধানে বলা আছে। দুই একজন নোট অব ডিসেন্ট দিতেই পারেন। কাজেই কেন বলা হচ্ছে দ্বিধা বিভক্ত? এটা সংবিধানই অধিকার দিয়েছে। মতপার্থক্য তো থাকবেই। জাস্টিসের জন্যই এটা দরকার।’ 

নির্বাচনে সহিংসতা বিষয়ে নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘আমরা ভারতের তুলনায় অনেক ভাল আছি। কোথাও সহিংসতা তো নেই। ভারতের একটা পঞ্চায়েত নির্বাচনেই কত সহিংসতা হয়। কিন্তু ওরা নিজেদের অনেক বড় করে  দেখায়।’

এদিকে ইসি সূত্র জানায়, আরপিওতে ইভিএম যুক্ত ও এর ব্যবহার নিশ্চিত করতে বেশ কিছু ধারা, উপধারা সংশোধন করা হচ্ছে। কিন্তু একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাধ্যতামূলকভাবে ইভিএম ব্যবহার করতে হবে, এমন কথা কোথাও উল্লেখ নেই।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে