সংবাদ সম্মেলনে রিজভী

সোহেলকে গ্রেপ্তার করে রাখলে সরকারের টেনশন দূর হয়

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২২:৩২ | অনলাইন সংস্করণ

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। ছবি : সংগৃহীত

ভোটারশূন্য নির্বাচন করতেই সরকার হাবিব উন নবী খান সোহেলকে গ্রেপ্তার করেছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, হাবিব উন নবী খান সোহেল ঢাকা মহানগরের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তাকে  গ্রেপ্তার করে রাখলে সরকারের টেনশন দূর হয়। কারণ তারা ভোটার ‍শূন্য, জনগণ শূন্য একটা নির্বাচন করতে চায়। তো সেই নির্বাচন করলে সোহেলের মতো নেতৃত্বকে বাধা মনে করছে। এই মনে করেই তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা এবং তাকে আজকে গ্রেপ্তার করে বন্দি করা হয়েছে।’

আজ মঙ্গলবার রাতে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এসব কথা বলেন।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির জ্যেষ্ঠ এই নেতা বলেন, ‘আমরা সোহেলের গ্রেপ্তার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। অবিলম্বে তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত বানোয়াট মামলা প্রত্যাহার করে নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানাচ্ছি।’

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ‘হাবিব উন নবী খান সোহেল বিএনপির একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা। ছাত্র রাজনীতি শেষ করার পরে সে ক্রমান্বয়ে বর্তমান অবস্থান থেকে রাজনীতি করছেন। একজন সজ্জ্বন মৃদুভাষী রাজনীতিক হওয়ার পরে শুধুমাত্র সক্রিয়ভাবে জাতীয়তাবাদী রাজনীতি ও গণতান্ত্রিক সংগ্রামে অংশগ্রহণ করার জন্য তার বিরুদ্ধে কয়েকশ মিথ্যা ও বানোয়াট মামলা দায়ের করেছেন বিগত কয়েক বছরে। তার স্ত্রী আমাকে জানিয়েছে তার বিরুদ্ধে প্রায় সাড়ে ৪০০ থেকে ৫০০ মতো মামলা ইতিমধ্যে দায়ের করা হয়েছে।’

রিজভী বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজা দিয়ে কারাবনন্দী করার কয়েকদিন আগে থেকে এখন পর্যন্ত ৭০ থেকে ৭৫টি মিথ্যা-বানোয়াট মামলা তার (সোহেল) নামে সরকার অন্যায়ভাবে দিয়েছে। সোহেল একজন প্রতিবাদী নেতা। ছাত্রজীবন থেকে অন্যায়ের বিরুদ্ধে, অসত্যের বিরুদ্ধে সে সোচ্চার। সে দৃপ্ত কণ্ঠে বক্তব্য রাখেন অগণতান্ত্রিক সরকারের বিরুদ্ধে, এটাই তার অন্যায়। সরকারের দৃপ্ত পদক্ষেপে সে মিছিল করে— এটাই তার অন্যায়। এই অন্যায়ের জন্য তার বিরুদ্ধে মামলা।’

প্রসঙ্গত, আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে গুলশান ২ নম্বর গোলচত্বর এলাকা থেকে সোহেলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তার গ্রেপ্তারের পরপরই নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডাকা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন— দলের কেন্দ্রীয় নেতা রফিকুল ইসলাম, তাইফুল ইসলাম টিপু, আবেদ রাজা, সাইফুল ইসলাম পটু,স্বেচ্ছাসেবক দলের মোর্শেদ আলম, ছাত্র দলের আব্বাস আলী প্রমুখ।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে