শিক্ষার্থীদের কাছে ক্ষমা চেয়ে রেহাই পেলেন পুলিশ কর্মকর্তা!

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২২:৫৬ | অনলাইন সংস্করণ

লাইসেন্স দেখতে চাইলে তা না দেখিয়েই স্কাউট ও গার্লস গাইড অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যদের আহত করে মোটরসাইকেল চালিয়ে চলে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন পুলিশ পরিচয় দেওয়া মো. রেজাউল। কিন্তু রক্ষা মেলেনি। অদূরেই দায়িত্বরত অন্য স্কাউট সদস্যদের হাতে ধরা পড়েন তিনি। এই যাত্রায় শিক্ষার্থীদের কাছে ক্ষমা চেয়ে পার পেয়ে গেলেও মামলা ও জরিমানার টাকা গুনতে হয়েছে তাকে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর বেইলি রোডের অফিসার্স ক্লাবের মোড়ে এ ঘটনা ঘটে।

ওই পুলিশ সদস্যের মোটরসাইকেলে আঘাত পাওয়া স্কাউট ও গার্লস গাইড অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য আলফিসা সাফা জানান, ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা নিয়ন্ত্রণে ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে কাজ করছিলেন তারা। দুপুর ১টার দিকে বেইলি রোডের অফিসার্স ক্লাবের মোড়ে তার এক বন্ধু এক মোটরসাইকেল আরোহীকে আটকায়। এ সময় তার পেছনের আরোহীর মাথায় হেলমেট ছিল না। একপর্যায়ে সাফা এগিয়ে গিয়ে লাইসেন্স দেখতে চাইলে মোটরসাইকেল আরোহী নিজের নাম মো. রেজাউল এবং তিনি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সদস্য বলে পরিচয় দেন।

এরপরও স্কাউট সদস্যরা চাবি চাইলে তা না দিয়ে তিনি সাফা ও তার বন্ধুর মাঝখান দিয়েই মোটরসাইকেল চালিয়ে এগিয়ে যান। এতে তারা পায়ে আঘাত পায়। পরে অবশ্য পেছন থেকে মোটরসাইকেলটি আটকে ফেলে তাদেরই আরেক সহকর্মী। পরে ট্রাফিক পুলিশের অন্য সদস্যরা এসে রেজাউলের বিরুদ্ধে মামলা ও জরিমানা করেন।

রমনা ট্রাফিক জোনের পরিদর্শক (প্রশাসন) তরিকুল আলম জানান, লাইসেন্স না থাকার কারণে ট্রাফিক আইনে মো. রেজাউলের বিরুদ্ধে মামলা এবং ৮০০ টাকা জরিমানা করা হয়। এ ছাড়া গায়ের ওপর মোটরসাইকেল তুলে দেওয়ার অভিযোগে অপরাধ আইনে মামলা করার জন্য গার্লস গাইডের সদস্যদের পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি। তবে রেজাউল নিজের ভুল স্বীকার করে মাফ চাইলে গার্লস গাইডের সদস্যরা মামলা করেননি।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে