ড. কামালের 'ষড়যন্ত্রের ঐক্য' কোনো ফল দেবে না : মেনন

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৬:০৪ | আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৭:৩০ | অনলাইন সংস্করণ

ড. কামাল হোসেনের জাতীয় ঐক্যের মূলশক্তি থাকবে বিএনপি-জামাত। কামাল ও বদরুদ্দোজা চৌধুরী শুধুমাত্র স্বাক্ষী গোপাল হয়ে থাকবেন বলে মন্তব্য করেছেন সমাজকল্যাণমন্ত্রী ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন। তিনি বলেন, 'ষড়যন্ত্রের এই ঐক্য কোনো ফল দেবে না। আন্দোলন দূরে থাক, তারা একত্রে কোন কাজই করতে পারবেন না।'

আজ শনিবার রাজধানীর শাহজাহানপুরের ১১ নং আওয়ামী লীগ ওয়ার্ড কার্যালয়ে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেছেন।

এ সময় গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে নতুন ঐক্যে বিএনপির সংশ্লিষ্টতা নিয়ে সমালোচনা করেন মেনন।

তিনি বলেন, 'ড. কামাল হোসেনের মতো জনবিচ্ছিন্ন ব্যক্তির নেতৃত্বে গড়ে ওঠা আন্দোলনটি এখন জগাখিচুড়ি অবস্থায় দাঁড়িয়েছে। যেখানে বিএনপি গত নয় বছরে নয়টি আন্দোলনও করতে পারেনি: সেখানে এই ঐক্য আন্দোলনের ডাক দিয়ে সরকার পতনের কথা বলছে।'

'আন্দোলন তো দূরের কথা, এই ঐক্য আসলে তাদের মধ্যে কোনো ঐক্যই আনতে পারবে না। বর্তমান সরকারের উন্নয়নের কাছে তাদের ষড়যন্ত্রের ঐক্য ধুয়ে বিলীন হয়ে যাবে' বলেও মন্তব্য করেন মন্ত্রী।

বর্তমান সরকারের উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরে মেনন বলেন, 'আমাদের বর্তমান সরকারের আমলে বাংলাদেশ এক অবিশ্বাস্য উন্নয়নের পথে এগিয়ে গেছে। বাংলাদেশে এ বছর স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।'

তিনি আরও বলেন, 'জাতীয় প্রবৃদ্ধি পরপর গত দু'বছর ৭% এর কোটা ছাড়িয়ে গেছে। দেশের জিডিপি বেড়েছে কয়েকগুণ। দেশের মানুষের মাথাপিছু আয় ২০০৫ সালের বিএনপি-জামাত শাসনের ৫৪০ ডলার থেকে এখন দাঁড়িয়েছে ১৭৫২ ডলারে। দারিদ্র্য কমে নেমে এসেছে ২২% শতাংশে। রেমিট্যান্স বেড়েছে,বেড়েছে রপ্তানি আয়। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ এখন ৩৩ বিলিয়ন ডলার। খাদ্যশস্য উৎপাদনে বাংলাদেশ এখন নিজের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে রপ্তানির কথা ভাবতে পারছে।'

মেনন বলেন, 'মৎস্যচাষে বাংলাদেশ পৃথিবীর চতুর্থ ও সবজি উৎপাদনে তৃতীয়,গার্মেন্টস রপ্তানীতে দ্বিতীয়। এর সঙ্গে ওষুধ,সিমেন্ট,চামড়াজাত দ্রব্য,চিংড়ি,কাকড়া,কচ্ছপ ও কুটির শিল্পপণ্য ব্যাপক হারে বিদেশে রপ্তানি করছে।'

তিনি আরও বলেন, 'অভ্যন্তরীণ ক্ষেত্রে সরকার পদ্মাসেতু নির্মাণের পাশাপাশি আরও বহু সেতু নির্মাণ,রেলপথ,মেট্রোরেল,এক্সপ্রেসওয়ে,একের পর এক উড়াল সেতু,ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট,ফোর লেন বিশিষ্ট রাস্তা নির্মাণ,অভ্যন্তরীণ বিমানের চলাচলের ব্যাপক বিস্তৃতি,২০১৮ সালের মধ্যে সকল গ্রামকে বিদ্যুতের আওতায় আনা,দেশের গ্যাস ফুড়িয়ে যাওয়ায় এলএনজি আমদানির ব্যবস্থা করা,গ্রামে গ্রামে কমিউনিটি হাসপাতাল,কৃষি,স্বাস্থ্য ও অর্থনীতি বিষয় জানতে প্রতি ইউনিয়নে ডিজিটাল তথ্যকেন্দ্র ও সর্বোপরি বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের মাধ্যমে বাংলাদেশকে মহাকাশের সাথে সংযুক্ত করার বিশাল কর্মযজ্ঞ সম্পন্ন করেছে ও করে যাচ্ছে।'

এই সময়কালে নারীর ক্ষমতায়ন,নারী শিক্ষার বিস্তার,বাল্যবিবাহ রোধ,স্বাস্থ্যসেবা প্রভৃতি ক্ষেত্রে বাংলাদেশ কেবল আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পায় নাই,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা ও দেশের কাছ থেকে বিরল সম্মাননা পেয়েছেন।সুতরাং এই সরকারকে জন বিচ্ছিন্ন লোকের নেতৃত্বে আন্দোলনের ভয় দেখিয়ে কোনো ফায়দা হবে না বলে না বলেও সতর্ক করেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী।

১১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. কামরুজ্জামান বাবুলের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ১১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ইসমাত জামিল লাভলু,শাহজাহানপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল লতিফ, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুকিত হাওলাদার, অ্যাডভোকেট হুমায়ুন প্রমুখ।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে