ফুসলিয়ে জঙ্গলে নিয়ে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ২

  ঝিনাইগাতী প্রতিনিধি

২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৭:০৭ | অনলাইন সংস্করণ

স্কুলের উদ্দেশে বাসা থেকে বের হয় এক ছাত্রী (১৫)। কিন্তু শেষ পর্যন্ত স্কুলে যাওয়া হয়নি তার। তাকে ফুসলিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় এক জঙ্গলে। সেখানে আগে থেকেই ওৎ পেতে থাকা দুজন সহযোগীকে নিয়ে ওই ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে এক দুর্বৃত্ত। গতকাল রোববার দুপুরে শেরপুর জেলার মধুটিলা ইকোপার্কের পেছনের জঙ্গলে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে ইতিমধ্যেই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- উপজেলার গজারীকুড়া পূর্বপাড়া গ্রামের মো. শাকিল (২২) ও রহমত (২০)। আজ সোমবার দুপুরে তাদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

ধর্ষিত ওই স্কুলছাত্রী ঝিনাইগাতী উপজেলার স্থানীয় একটি স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্রী ও এক দরিদ্র রিকশাচালকের মেয়ে।  

পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, নবম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে প্রতিবেশী শাকিল মাঝেমধ্যে উত্ত্যক্ত করতেন। গত রোববার সকাল ১০টার দিকে ওই ছাত্রী বাড়ি থেকে স্কুলের উদ্দেশে বের হয়। পথিমধ্যে ছাত্রীটির দূর সম্পর্কের ভাই রহমত তাকে (ছাত্রী) স্কুলে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে এজাহারনামীয় আসামি আলমগীরের (২০) ইজিবাইকে তুলে দেন।

পরে সে ওই ছাত্রীকে স্কুলে না নামিয়ে পূর্ব পরিকল্পনানুযায়ী ফুসলিয়ে মধুটিলা ইকোপার্কের পেছনের জঙ্গলে নিয়ে যান। সেখানে আগে থেকে অবস্থান করা শাকিল তার অন্য দুই সহযোগী আল আমিন (২০) ও আলফাজের (২২) সহযোগিতায় জোরপূর্বক তাকে ধর্ষণ করেন। ঘটনার পর পরই আসামিরা পালিয়ে যান। পরে ওই ছাত্রীর চিৎকারে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে পৌঁছে দেন।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে শাকিলকে প্রধান আসামি করে পাঁচজনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে গত রোববার রাতে থানায় মামলা দায়ের করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ঝিনাইগাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার বিশ্বাস জানান, ঘটনার সঙ্গে জড়িত অভিযোগে শাকিল ও রহমতকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।

ধর্ষিত ওই ছাত্রীর ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে