সময়ের আবেদন করে কালক্ষেপণ করছেন খালেদার আইনজীবীরা : কাজল

  আদালত প্রতিবেদক

১৬ অক্টোবর ২০১৮, ১৪:৪৬ | অনলাইন সংস্করণ

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার পক্ষে সময় আবেদন করে তার আইনজীবীরা কালক্ষেপণ করছেন বলে মন্তব্য করেছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল।

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর নাজিমউদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থাপিত অস্থায়ী আদালতের জেলগেটে সাংবাদিকদের কাছে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, ‘আদালত বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়া আদালতে আসুক আর নাই আসুক মামলার বিচারিক কার্যক্রম চলবে। তাতে তার আইজীবীদের উচিত ছিল, আজকে তাদের যুক্তিতর্ক আদালতে প্রদর্শন করা। আদালতের কাছে এ ব্যাপারে কিছু বলা। কিন্তু না আজকেও আপনারা দেখেছেন তারা সময়ের আবেদন করে কালক্ষেপণ করছেন, দীর্ঘায়িত করছেন, বিলম্বিত করছেন।’

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নামটাও তিনি ব্যবহার করেননি। শুধু বেগম খালেদা জিয়া নাম দিয়ে অ্যাকাউন্ট ওপেন করে তিনি ৩ কোটি ১০ লাখ টাকা জিয়াউর রহমানের নামে চ্যারিটেবল ট্রাস্ট করে টাকাগুলো আত্মসাৎ করেছেন।’

খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের উদ্দেশে দুদকের আইনজীবী বলেন, ‘সেই মামলায় ৩২ জন সাক্ষী হয়েছে, তদন্তকারী কর্মকর্তা হয়েছে, ৩৪২ হয়ে গেছে। তার পর আড়াই বছর চলে গেলেও উনারা যুক্তিতর্ক প্রদর্শন করেননি। মাননীয় আদালত বারবার অনুরোধ করেছেন, তাদের যুক্তিতর্ক প্রদর্শন করতে। কিন্তু উনারা বারবার নানা অজুহাত এবং একগুঁয়েমি দেখিয়ে আদালতের কোনো আদেশকে সম্মন করেননি। ’

তিনি আরও বলেন, ‘পরবর্তীতে এই মামলা খালেদা জিয়া জেলখানায় থাকাকালীন তার অনুপস্থিতে বিচারকাজ চলবে মর্মে আমরা দরখাস্ত করেছিলাম। তারা এই দরখাস্ত অনাস্থা জ্ঞাপন করে উচ্চতর আদালতে গিয়েছিলেন। মাননীয় আদালত তাদের উপস্থিতিতে তাদের সেই আবেদন খারিজ করে দেন।’

মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, ‘আদালতের মনে হয়েছে আমরা যে আবেদন করেছি সেটি গ্রহণযোগ্য। এ কারণেই আদালত বিচারের কার্যক্রমসহ সবকিছু আজকে ক্লোজ করে দিয়ে রায়ের দিন ঘোষণা করেছেন। আগামী ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করা হবে। এই মামলার সর্বোচ্চ শাস্তি হলো ৫ থকে ৭ বছরের কারাদণ্ড।’

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে