নিজের তৈরি প্রতিমায় পুরোহিত হৃদয়

  মানিক কুমার ঘোষ, কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ)

১৭ অক্টোবর ২০১৮, ১৭:২৮ | অনলাইন সংস্করণ

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে নিজের বানানো প্রতিমায় নিজেই পুরোহিত হয়ে পূজা করছেন অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া হৃদয় সূত্রধর নামের এক কিশোর। সে কালীগঞ্জ পৌর এলাকার থানা পাড়ার গোপাল সূত্রধরের ছেলে এবং স্থানীয় সরকারী নলডাঙ্গা ভূষণ পাইলট হাইস্কুলের ছাত্র।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বাড়ির সামনে পূজা মণ্ডপ ঘিরে ডেকোরেটরের রঙ-বেরঙের কাপড় দিয়ে ঘেরা। পূজার জায়গা অল্প হলেও অতিথিদের জন্য বসানো রয়েছে বেশ কিছু চেয়ার। কিশোর হৃদয় নিজেই প্রতিমার সামনে বসে পুরোহিত হয়ে পূজা দিচ্ছে। আর বাইরে রয়েছে দর্শনার্থীদের ভিড়। এতটুকু ছেলে নিখুঁতভাবে প্রতিমা তৈরি করে আলোচনায় এসেছে।

হৃদয় জানায়, ছোটবেলায় যখন তাদের এলাকায় ভাস্কররা প্রতিমা তৈরি করতেন তখন পাশে দাঁড়িয়ে সে দেখত। আর ভাবত সে নিজেও প্রতিমা তৈরির জন্য চেষ্টা করবে। তখন থেকে শুরু করে আজ সফল হতে পেরেছে।

হৃদয় জানায়, কয়েকদিন পরেই তার জেএসসি পরীক্ষা। কাজেই তার পড়ালেখার বাড়তি চাপ রয়েছে। পড়াশুনার মধ্যেও সে প্রতিমা তৈরি করে নিজেই পুরোহিত হয়ে পূজা করছে। প্রতিমাগুলো তৈরি ও রঙ করে পূজার উপযোগী করতে তার ২১ দিন সময় লেগেছে।

কিশোর হৃদয় আরও জানায়, নিজের তৈরি করা প্রতিমায় নিজে পুরোহিত হয়ে পূজা করতে পেরে সে অনেক খুশি।

হৃদয়ের সহপাঠী সুজয় বিশ্বাস জানায়, হৃদয় তার ক্লাসের একজন মেধাবী, ভদ্র ছেলে। সে যেমন লেখাপড়ায় ভালো, আবার অতি তাড়াতাড়ি একটি বিষয় অনুকরণও করতে পারে।

হৃদয় সূত্রধরের বাবা গোপাল সূত্রধর জানান, তিনি নিজে কাঠের বিভিন্ন ফার্নিচারের কাজ করে সংসার চালান। তার ছেলে ছোটবেলা থেকে খুব মেধাবী। লেখাপড়ার পাশাপাশি সকল কাজেই সে মেধার স্বাক্ষর রেখে চলেছে।

তিনি জানান, গত বছর থেকে সে প্রতিমা তৈরি করে আনুষ্ঠানিকভাবে শারদীয়া দুর্গাপূজা শুরু করেছে। তিনি এ বছর থেকে কালীগঞ্জ উপজেলা পূজামণ্ডপে তালিকাভুক্ত হয়েছেন। অন্যদের মতো সরকারি অনুদানও পেয়েছেন। কিন্তু খরচও কম নয়। যারা ভক্ত দর্শনার্থী তারা কিছু সাহায্য করছেন এতেই চলে যাচ্ছে।

গোপাল সূত্রধর আরও জানান, শহরে যতগুলো পূজা মণ্ডপ আছে সেগুলোর তুলনায় তার বাড়ির মণ্ডপে অপেক্ষাকৃত ভিড় লেগেই থাকছে। গতকাল স্থানীয় সংসদ সদস্য (এমপি) আনোয়ারুল আজিম আনারসহ সরকারি উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তারা পরিদর্শনে এসেছিলেন। নিজের ছেলের তৈরি করা প্রতিমায় বাড়িতে পূজা করতে পারছেন আবার দূর-দূরন্ত থেকে দর্শনার্থীরা দেখতে ভিড় জমাচ্ছেন সে কারণে বাবা হয়ে নিজের কাছেও ভালো লাগছে।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের কালীগঞ্জ উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রশান্ত খাঁ জানান, কালীগঞ্জের কিশোর হৃদয় সুত্রধর গতবারও বাড়িতে নিজের তৈরি প্রতিমায় পুরোহিত হয়ে পূজা দিয়ে আলোচিত হয়েছিল। এ বছরও ধারাবাহিকতা রক্ষা করে শাস্ত্র মোতাবেক পূজা দিচ্ছে।

প্রশান্ত খাঁ জানান, চলতি বছর এ উপজেলাতে মোট ৯০টি মণ্ডপে শারদীয় দুর্গাপূজা হচ্ছে। এর মধ্যে হৃদয়ের মন্ডুপটিও রয়েছে। স্থানীয় উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের পক্ষ থেকে অন্যদের মতো তাকেও সহযোগিতা করা হচ্ছে। এছাড়াও অতি অল্প বয়সে প্রতিমা তৈরির মাধ্যমে হৃদয় যে শৈল্পিক প্রতিভার পরিচয় দিয়েছে সে জন্য তাকে ধন্যবাদ জানানো হয়েছে। 

এ বিষয়ে কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুবর্ণা রানী সাহা জানান, আমি উপজেলার প্রায় সকল পূজা মণ্ডপ পরিদর্শন করেছি। শুনেছি শহরের থানা পাড়ার হৃদয় নামের এক কিশোর নিজে প্রতিমা তৈরি করে নিজেই পুরোহিত হয়ে পূজা করছে। এ কারণে এখানে একটু সময় করে যাব ছেলেটার প্রতিভার প্রতি সম্মান দেখাতে ও তাকে উৎসাহ দিতে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে