২০৩০ সালের মধ্যেই টেকসই উন্নয়ন বাস্তবায়ন হবে : সমাজকল্যাণমন্ত্রী

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৭ অক্টোবর ২০১৮, ২১:১২ | অনলাইন সংস্করণ

ছবি : সংগৃহীত

সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, আমাদের বর্তমান সরকার অত্যন্ত পরিকল্পিত উপায়ে দেশকে উন্নয়নের ঊর্ধ্বমুখে নিয়ে যাচ্ছে। সঠিক পরিকল্পনা থাকার কারণেই আমাদের এখন মাথাপিছু আয় বহুগুন বৃদ্ধি পেয়েছে, বেড়েছে জিডিপিতে প্রবৃদ্ধির হারও। আমরা নিজস্ব অর্থায়নে এখন পদ্মাসেতু করছি। দেশ এভাবেই এগিয়ে যেতে থাকলে ২০৩০ সালের মধ্যেই আমাদের টেকসই উন্নয়নও বাস্তবায়ন সম্ভব হবে।

আজ বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে বাংলাদেশ কেমিস্ট্রি সোসাইটি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগ আয়োজিত ১৭ থেকে ১৯ অক্টোবর পর্যন্ত তিন দিনব্যাপি ‘বাংলাদেশ কেমিকেল কংগ্রেস ২০১৮’ শীর্ষক কর্মশালায় মেনন এ কথা বলেন।

জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশের ঝুঁকিতে থাকা প্রসঙ্গে মেনন বলেন,‘আমরা আমাদের কারণে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে পড়ি না। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে আমাদের মত নিম্নাঞ্চলের দেশগুলোতে বন্যা,খরা,ঝড় ও জলোচ্ছাসের মত প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের মাধ্যমে যে পরিমাণ ক্ষতি হয় তার জন্য আমেরিকাসহ পশ্চিমা উন্নত দেশগুলি দায়ী। তারে নিজেদের উন্নয়ন প্রতিযোগিতার কারণে আমাদের মত নিচু দেশগুলির ক্ষতির বিষয়টি তারা নিজেরাও অবগত আছে। কিন্তু এবিষয়ে তারা কোনো উদ্যোগ না নিয়ে নিশ্চুপ বসে আছে। কাজেই আমেরিকাসহ অন্যান্য উন্নত বিশ্বের অতিদ্রুত পারমানবিক অস্ত্র বিলুপ্ত করার পাশাপাশি বাতাসে কার্বন ডাই অক্সাইড,মিথেন ও ক্লোরোফ্লোরো গ্যাসের ব্যাবহারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পদক্ষেপ নেওয়া উচিৎ।’

পরে মেনন কর্মশালার মূল বিষয়বস্তু ‘কেমিস্ট্রি ফর গ্রিন লিভিং’ এর তাৎপর্য তুলে ধরেন এবং কেমিস্ট্রির মাধ্যমে চিকিৎসাসহ সব ক্ষেত্রে সবাইকে এগিয়ে এসে নতুন কিছু আবিষ্কারে মনোনিবেশ করার আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ কেমিকেল সোসাইটির সভাপতি মো. আব্দুল করিম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন কর্মশালার পৃষ্ঠপোষক প্রফেসর ড. নাসরিন আহমেদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রসায়ন বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মো. আজিজুর রহমান,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগের ডিন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আবদুল আজিজ প্রমুখ।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে