দুদক কর্মকর্তাকে সতর্ক করলেন হাইকোর্ট

প্রকাশ | ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ২২:১৯ | আপডেট: ০৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০১:৩৭

নিজস্ব প্রতিবেদক

দুদকের উপসহকারী পরিচালক মো. আল-আমীনকে দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে বলেছেন হইকোর্ট। আদালত বলেছেন, ‘প্রজাতন্ত্রের কর্মচারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে হবে। যতদিন চাকরিতে থাকবেন ততদিন জনগণের সার্ভেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।’

ইতিপূর্বে দেওয়া তলবের আদেশে ওই কর্মকর্তা হাজির হলে বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের বেঞ্চ আজ  বৃহষ্পতিবার তাকে সতর্ক করেন।

ভোলা সদর থানার ইলিশা ইসলামিয়া মডেল কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিনকে দুদকে হাজির হতে যেদিন নোটিশ দেন সেদিনই তাকে হাজির হতে বলায় হাইকোর্ট এ কর্মকর্তাকে ভর্ৎসনাও করেন।

জানা যায়, জাল সনদ দিয়ে চাকরি নেওয়ার মাধ্যমে ৪ কোটি ৫৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ১১ ফেব্রুয়ারী দুদক ওই অধ্যক্ষকে নোটিশ দেয়। নোটিশে সেদিনই তাকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ দুদকে হাজির হতে বলা হয়। এ অবস্থায় নোটিশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদন করেন সংশ্লিষ্ট অধ্যক্ষ।

রিট আবেদনে বলা হয়, এর আগে জনৈক সালাউদ্দিন ওই অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে একই অভিযোগে ২০০৭ সালের ১৪ মে ভোলা সদর থানায় মামলা করেন। এ মামলায় সিআইডি তদন্ত শেষে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়ে আদালতে চূড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করেন। এ অবস্থায় দুদক একই বিষয়ে তাকে নোটিশ দিয়েছে। এ রিট আবেদনে হাইকোর্ট গত ২৮ ফেব্রুয়ারি নোটিশের কার্যকারিতা স্থগিত করেন ও রুল জারি করেন।

এ রুলের ওপর শুনানিকালে গত ১৫ নভেম্বর এক আদেশে দুদকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে তলব করেন হাইকোর্ট। ওই আদেশ অনুযায়ী আজ  মামলার নথিসহ হাইকোর্টে হাজির হন দুদকের উপসহকারী পরিচালক মো. আল-আমীন। আদালতে দুদকের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন এ কে এম ফজলুল হক। মাদ্রাসা অধ্যক্ষের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন এবং রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিনউদ্দিন মানিক।