বিচার বিভাগের দক্ষতা দেশের সাফল্যের মাপকাঠি : প্রধান বিচারপতি

  ঢাবি প্রতিনিধি

০৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ২০:০০ | অনলাইন সংস্করণ

বিচার বিভাগের দক্ষতাকে একটি দেশের সাফল্যের মাপকাঠি বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। আজ শুক্রবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কাজী মোতাহার হোসেন ভবনের মাঠে বাংলাদেশ আইন সমিতির ৩৩ তম বার্ষিক সম্মেলন-২০১৮ তে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন তিনি।

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘একটি দেশের সরকারের কৃতিত্ব পরিমাপ করার মাধ্যম হচ্ছে তার বিচার বিভাগের দক্ষতা ও যোগ্যতা। গণতান্ত্রিক শাসন বব্যস্থায় বিচার বিভাগের ভূমিকা অনস্বীকার্য। আইনের শাসন, মৌলিক মানবধিকার, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক সাম্য, স্বাধীনতা ও সুবিচার নিশ্চিত করার লক্ষে প্রণীত হয়েছে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আইন সংবিধান।’

সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন, ‘দেশের সংবিধানে রাষ্ট্রের আইন বিভাগ, শাসন বিভাগ ও বিচার বিভাগের দায়িত্ব ও স্বাতন্ত্র বৈশিষ্ট্যর কথা স্পষ্ট ভাবে উল্লেখ করা হয়েছে। তিনটি অঙ্গের সৌহাদ্যপূর্ণ সম্পর্ক গণতন্ত্র ও আইনের শাসনকে সুসংহত ও বিকশিত করা অপরিহার্য্য। জাতির বৃহৎ স্বার্থে এবং অর্থনৈতিক সম্প্রিতি অর্জন ও সামগ্রীক উন্নয়নের ধারাকে তরান্বীত করার জন্য রাষ্ট্রের তিনটি অঙ্গের সমন্বীত প্রয়াসের বিকল্প নাই।’

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন আরও বলেন, বিশ্বব্যাপী আইন পেশা একটি মহান পেশা হিসেবে স্বীকৃত। বিচারক ও আইনজীবীরা হচ্ছেন সোশ্যাল ইঞ্জিনিয়ার। শিক্ষিত, জ্ঞানী-গুনী, সকল লোকের সমাগম ঘটে এখানে। আইনজীবীদের শুধু আইনের উপর দখল থাকলে চলবে না পেশাগত আচরণও সুন্দর হতে হবে। তাকে অবশ্যই সৎ থাকতে হবে এবং উচ্চ নৈতিক মূল্যবোধ বজায় রাখতে হবে। কেননা বিচার নিস্পত্তির সাথে রয়েছে এর গভীর সম্পর্ক। আর এ কারণে ব্যক্তিগত স্বার্থের চেয়ে আদালতের প্রতি কর্তব্য সবার আগে বিবেচনা করতে হবে।’

প্রধান বিচারপতি আশা করেন, বাংলাদেশ আইন সমিতি বিভিন্ন আর্থ-সামাজিক, সাংস্কৃতিক, মানব-উন্নয়নসহ দরিদ্র ও সহায়-সম্বলহীন জনগণকে আইনি সেবা প্রদানে নিরন্তর প্রচেষ্ঠা চালিয়ে যাবে।

বাংলাদেশ আইন সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. কামরুজ্জামান আনসারীর সভাপতিত্বে এবং সমিতির সাধারণ সম্পাদক সহিদুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন সুপ্রীম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার, প্রধান বিচারপতির স্ত্রী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন বিভাগের প্রাক্তন ছাত্রী সামিনা খালেক, সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আবদুল্লাহ মাহমুদ হাসান এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. রহমত উল্লাহ। সম্মেলনের উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন সম্মেলন প্রস্ততি কমিটি-২০১৮ এর আহ্বায়ক মোল্লা মো. আবু কাওছার।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে