জিয়া সাইবার ফোর্সের মহাসচিব হারুন গ্রেপ্তার

  নিজস্ব প্রতিবেদক

০৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ২০:৫২ | অনলাইন সংস্করণ

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রাষ্ট্রবিরোধী প্রচারণা এবং মিথ্যা ও বানোয়াট নিউজ প্রচারণার অভিযোগে জিয়া সাইবার ফোর্সের মহাসচিব কে এম হারুন অর রশীদকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৩)।

আজ  শুক্রবার সকালে রাজধানীর গুলিস্তান থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে দুটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করে সংস্থাটি। রাতে পল্টন থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা করেছে র‌্যাব।

র‌্যাব-৩ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বীনা রানী দাস জানান, র‌্যাব-৩ এর সাইবার মনিটরিং সেল দীর্ঘদিন ধরে এই গ্রুপটি পর্যবেক্ষণ করছিল। জিয়া সাইবার ফোর্স গ্রুপের সদস্যরা দীর্ঘদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রাষ্ট্রবিরোধী মিথ্যা ও মনগড়া পোস্ট প্রচার করছে। এতে করে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হচ্ছে। এর আগেও এই গ্রুপের একাধিক সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, শুক্রবার সকালে গুলিস্তান এলাকায় এই গ্রুপের সদস্যরা গোপন বৈঠক করবে এমন একটি তথ্য পায় র‌্যাব। বৈঠকটি নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকারবিরোধী অপপ্রচার জোরদার করার পরিকল্পনার জন্য আয়োজন করা হয়েছিল। এই তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে কে এম হারুন উর রশীদকে গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বিভ্রান্তিকর ও মিথ্যা সংবাদের ভিত্তিতে গুজব ছড়ানোর কাজ করছিলেন বলে স্বীকার করেছেন হারুন।

হারুনের তথ্যমতে, জনসাধারণকে বিভ্রান্ত করতে প্রধানমন্ত্রী ও অন্যান্য মন্ত্রীদের সম্পর্কে করুচিপূর্ণ মন্তব্য ও ছবি পোস্ট করছে জিয়া সাইবার ফোর্স। গুজব ছড়িয়ে রাষ্ট্রকে অস্থিতিশীল করে সরকারকে উৎখাত করাই ছিল তাদের মূল উদ্দেশ্য।

২০১৬ সাল থেকে ‘জিয়া সাইবার ফোর্স’ গ্রুপ এ ধরনের প্রচারণা চালাচ্ছে। হারুন ‘জিয়া সাইবার ফোর্সে’র মহাসচিবের দায়িত্ব পালন করার পাশাপাশি এই গ্রুপের একজন অ্যাডমিনের দায়িত্বও পালন করছিলেন। তার বাবার নাম শুকুর আলী খন্দকার। গ্রামের বাড়ি পাবনার সাঁথিয়ার করমজা গ্রামে। আশুলিয়ার পশ্চিম জিরাবো (বাগানবাড়ী) এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছেন তিনি।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে