ইলিয়াসের স্ত্রী লুনা ও মিল্লাতের প্রার্থিতা স্থগিত

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৪:৩৭ | আপডেট : ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ২০:৩৫ | অনলাইন সংস্করণ

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-২ আসনে ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদির লুনা ও জামালপুর-১ আসনে রশিদুজ্জামান মিল্লাতের প্রার্থিতা স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। তারা দুজনই বিএনপির মনোনীত প্রার্থী।

সিলেট-২ আসনে বিএনপির প্রার্থী তাহসিনা রুশদির লুনার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশনের দেওয়া সিদ্ধান্ত স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট।  একই আসনে মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টির প্রার্থী ইয়াহহিয়া চৌধুরীর করা এক রিট পিটিশনের শুনানি নিয়ে আজ বৃহস্পতিবার সকালে এই আদেশ দেন বিচারপতি জেবিএম হাসানের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চ।

আদালতে করা রিট আবেদনে ইয়াহহিয়া চৌধুরী বলেন, আরপিও অনুযায়ী সরকারি চাকরি থেকে অবসর নেওয়ার তিন বছর পর সংসদ সদস্য পদে প্রার্থী হওয়ার বিধান থাকলেও তাহসিনা রুশদীর লুনা ৬ মাস আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার পদ থেকে অব্যাহতি নেন।  তাই আরপিও অনুযায়ী, লুনার প্রার্থিতা অবৈধ দাবি করে নির্বাচন কমিশনে আবেদন করেন ইয়াহহিয়া চৌধুরীর আইনজীবী।  নির্বাচন কমিশন লুনার প্রার্থিতা বৈধ ঘোষণা করেন।

পরে নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হাইকোর্টে রিট করেন ইয়াহহিয়া চৌধুরী। বৃহস্পতিবার সকালে শুনানি শেষে বিচারপতি জেবিএম হাসানের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ তাহসিনা রুশদির লুনার প্রার্থিতা স্থগিতের আদেশ দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন। তিনি জানান, হাইকোর্টের এই আদেশের ফলে লুনা আর নির্বাচন করতে পারবেন না।

এদিকে জামালপুর-১ আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী সাবেক তথ্যমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদের করা রিটের শুনানি শেষে আজ বৃহস্পতিবার বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো.খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।  আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান।  অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু।

পরে খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘রশিদুজ্জামান মিল্লাত দণ্ডিত ব্যক্তি।  এ কারণে রিটার্নিং অফিসার তার মনোনয়নপত্র বাতিল করেছিলেন। কিন্তু তিনি নির্বাচন কমিশেন আপিল করে প্রার্থিতা ফিরে পান। নির্বাচন কমিশনের এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে রিট করেন সাবেক তথ্যমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ। এ রিটের শুনানি শেষে আদালত নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত স্থগিত করে রুল জারি করেছেন। ফলে এ অবস্থায় তিনি আর নির্বাচন করতে পারছেন না।’

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে