আব্বাসের অবৈধ সম্পদের মামলা স্থগিত হওয়ায় সাক্ষ্য গ্রহণ হয়নি

  আদালত প্রতিবেদক

১০ জানুয়ারি ২০১৯, ১৯:০৬ | অনলাইন সংস্করণ

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের জ্ঞাতআয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলার কার্যক্রম আপিল বিভাগ কর্তৃক স্থগিত হওয়ায় সাক্ষ্য গ্রহণ পিছিয়ে আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি ঠিক করেছেন আদালত।

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকার ৬ নম্বর বিশেষ জজ ড. মো. শেখ গোলাম মাহবুব এ তারিখ ঠিক করেন।

এদিন মামলাটিতে তদন্তকারী কর্মকর্তা দুদকের তৎকালীন সহকারী পরিচালক মো. খায়রুল হুদার অবশিষ্ট সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু মির্জা আব্বাসের পক্ষে বলা হয়, গত ২ জানুয়ারি আপিল বিভাগ এ মামলার কার্যক্রম ৪ সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছেন। ফলে বিচারক ১০ ফেব্রুয়ারি পরবর্তী সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ঠিক করেন।  

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ২০১৭ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর সাক্ষ্য দেওয়া শুরু করেছেন। এর আগে মামলাটিতে আরও ২৪ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেছেন আদালত।

২০০৭ সালে ১৬ আগস্ট ৫ কোটি ৯৭ লাখ ১৩ হাজার ২৩৪ টাকা জ্ঞাত আয়বর্হিভূত সম্পদ অর্জন ও ৩৩ লাখ ৪৮ হাজার ৫৮১ টাকার সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগে দুদকের তৎকালীন সহকারী পরিচালক মো. শফিউল আলম রমনা থানায় মামলা করেন। মামলায় মির্জা আব্বাস ছাড়াও তার স্ত্রী আফরোজা আব্বাসকে আসামি করা হয়।

মামলাটি তদন্তে শেষে সাক্ষ্য দেওয়া কর্মকর্তা ২০০৮ সালে দুই জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন। চার্জশিটে ৭ কোটি ৫৪ লাখ ৩২ হাজার ২৯০ টাকা জ্ঞাত আয়বর্হিভূত সম্পদ অর্জন ও ৫৭ লাখ ২৬ হাজার ৫৭১ টাকার সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগ করা হয়। চার্জশিট দাখিলের পর আফরোজা আব্বাস হাইকোর্টে কোয়াশমেন্ট মামলা করে তার আংশের মামলা বাতিল করেন।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে