মন্ত্রিসভার সদস্যদের পছন্দের এপিএস নিয়োগে সিদ্ধান্ত কাল

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ জানুয়ারি ২০১৯, ১২:৫৮ | আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ১৪:০৪ | অনলাইন সংস্করণ

নতুন সরকারের মন্ত্রিসভার সদস্যরা নিজেদের পছন্দে একান্ত সচিব (পিএস) না পেলেও সহকারী একান্ত সচিব (এপিএস) নিয়োগ দিতে পারবেন। গত বৃহস্পতিবার জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এ তথ্য জানিয়েছেন।

প্রথা ভেঙে এবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী-উপমন্ত্রীদের পিএস নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। এতে করে গুঞ্জন চলছিল যে, এপিএস পদে নিয়োগের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটবে। কিন্তু গতকাল জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন গণমাধ্যমকে জানান, মন্ত্রণালয় থেকে পিএস নির্ধারণ করে দেওয়া হলেও এপিএস নিয়োগে আগের রেওয়াজই বহাল থাকবে।

তিনি বলেন, মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীরা পছন্দের ব্যক্তিকে এপিএস হিসেবে নিয়োগ দিতে পারবেন। শুধু খেয়াল রাখতে হবে, এপিএস যিনি হচ্ছেন, তার যেন প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তার পদে আবেদন করার ন্যূনতম যোগ্যতা থাকে। আর এখন থেকে সরকারের পক্ষ থেকেই পিএস নিয়োগ দেওয়া হবে।

সরকারের উপর মহলের নির্দেশেই এপিএস নিয়োগের প্রক্রিয়া সাময়িকভাবে স্থগিত রাখা হয়েছে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা গেছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের একজন যুগ্ম সচিব গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, আগামীকাল রোববারের মধ্যে এ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হতে পারে।

প্রসঙ্গত গত মঙ্গলবার রাতে এক আদেশে ৪৪ মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী-উপমন্ত্রীর একান্ত সচিব নিয়োগ দেয় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। ইতোপূর্বে এ পদে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীর অভিপ্রায় অনুযায়ী নিয়োগ দেওয়া হতো। একাদশ সংসদ নির্বাচনোত্তর নতুন সরকারে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে। ইতোমধ্যেই মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যদের হুঁশিয়ার করে তিনি বলেছেন, কাজের ক্ষেত্রে যেন কোনো গাফিলতি না হয়। তিনি এসব বিষয়ে নজর রাখবেন।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে