sara

‘বীর প্রতীক’ তারামন বিবি কেমন আছেন?

  অনলাইন ডেস্ক

০১ ডিসেম্বর ২০১৬, ১১:৫৩ | আপডেট : ০১ ডিসেম্বর ২০১৬, ১৩:২০ | অনলাইন সংস্করণ

মহান মুক্তিযুদ্ধের বিজয়ের মাস এই ডিসেম্বর। ১৯৭১ সালের এই মাসে বাঙালি জাতির জীবনে নিয়ে এসেছিল এক মহান অর্জনের আনন্দ। ওই বছরের ১৬ই ডিসেম্বর পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্ত হয় প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশ। বিশ্বের বুকে রচিত হয় এক নতুন ইতিহাস। আর এই জয় ছিনিয়ে আনতে ভূমিকা রেখেছিলেন তারামন বেগম নামে এক বীর নারী মুক্তিযোদ্ধা। মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি তারামন বিবি নামে পরিচিত।

সেই ‘বীর প্রতীক’ তারামন বিবি এখন কেমন আছেন? খোঁজ নিতে গিয়ে জানা গেলো, তিনি ভালো নেই। নানা রোগব্যাধিতে আক্রান্ত। শীত আসার সঙ্গে সঙ্গে শ্বাসনালীর প্রদাহে আক্রান্ত হয়ে পড়েছেন তিনি।

জীবন সায়াহ্নে এসে তারামন বিবি জানালেন তার শেষ ইচ্ছার কথা। দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানালেন, তাকে যেন প্রয়াত সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের পাশে শায়িত করা হয়।

বীর প্রতীক তারামন বিবি স্বামী-সন্তানসহ বসবাস করেন কুড়িগ্রামের রাজিবপুর উপজেলা সদরের কাচারীপাড়া এলাকায়। কুড়িগ্রাম শহর লাগোয়া হলোখানা ইউনিয়নের আরাজী পলাশবাড়ী গ্রামে সরকারের দেওয়া এক বিঘা জমিতে বিজিবি’র উদ্যোগে ২০০৯ সালে বাড়ি করে দেওয়া হয়। গত কয়েকদিন ধরে এ বাড়িতে থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন তিনি।

১৯৭১ সালে ১৪ বছর বয়সী তারামন বিবি, মুক্তিযোদ্ধাদের ক্যাম্পে রান্না করার কাজ করতেন। রান্না করার ফাঁকে অস্ত্র চালাতে শিখেছেন। এরপর রান্নার খুন্তি ফেলে রাইফেল হাতে মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে সম্মুখ যুদ্ধে অংশ নিয়েছেন। অকুতোভয় এ বীরযোদ্ধা দু’বার যক্ষ্মায় আক্রান্ত হওয়ায় তার দু’টি ফুসফুসই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ফলে শীত আসার সঙ্গে সঙ্গে শ্বাসনালীর প্রদাহে ভুগছেন বলে জানালেন জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের সিভিল সার্জন ডা. এএসএম আমিনুল ইসলাম।

মুক্তিযুদ্ধে অবদান রাখার জন্য ‘বীর প্রতীক’ খেতাব প্রাপ্ত দু’জন নারীর মধ্যে একজন তারামন বিবি। দীর্ঘ ২৫ বছর পর ১৯৯৫ সালে আনুষ্ঠানিকভাবে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি ‘প্রতীক’ খেতাবের পদক তুলে দেওয়া হয় তার হাতে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে