আইজিপি’স ব্যাজ পেলেন ২৮৮ পুলিশ কর্মকর্তা

প্রকাশ | ২৫ জানুয়ারি ২০১৭, ১৮:০৭

নিজস্ব প্রতিবেদক

পুলিশ সপ্তাহ ২০১৭ উপলক্ষে ২০১৬ সালে প্রশংসনীয় ও ভাল কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ২৮৮ জন পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যকে আইজিপি’স ব্যাজ (IGP’s Exemplary Good Services Badge) প্রদান করা হয়েছে। বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল এ কে এম শহীদুল হক বুধবার (২৫ জানুয়ারি) পুলিশ সদস্যদেরকে ব্যাজ পড়িয়ে দেন।

আজ বুধবার পুলিশ সপ্তাহের তৃতীয় দিন বিকেলে রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র, মাদক দ্রব্য ও চোরাচালান মালামাল উদ্ধার অভিযানে সাফল্য অর্জনকারী ইউনিট এবং শিল্ড প্যারেড প্রতিযোগিতায় বিজয়ী দলকে পুরস্কৃত করা হয়।

অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধারে প্রথম কুমিল্লা
২০১৬ সালে অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধারে ক-গ্রুপে কুমিল্লা জেলা প্রথম, চট্টগ্রাম জেলা দ্বিতীয় এবং সিএমপি, চট্টগ্রাম তৃতীয় হয়েছে। খ-গ্রুপে যশোর জেলা প্রথম, কুষ্টিয়া জেলা দ্বিতীয় এবং মুন্সীগঞ্জ তৃতীয় হয়েছে। গ-গ্রুপে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রথম, রাজবাড়ী জেলা দ্বিতীয় এবং নড়াইল তৃতীয় হয়েছে। ঘ-গ্রুপে র‌্যাব-৮ বরিশাল প্রথম, র‌্যাব-৭ চট্টগ্রাম দ্বিতীয় এবং র‌্যাব-৫ রাজশাহী তৃতীয় হয়েছে। ঙ-গ্রুপে ডিএমপির ডিবি প্রথম, উত্তরা বিভাগ দ্বিতীয় এবং মিরপুর বিভাগ তৃতীয় হয়েছে।

মাদক দ্রব্য উদ্ধারে প্রথম চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন
২০১৬ সালে মাদক দ্রব্য উদ্ধারে ক-গ্রুপে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ প্রথম, কুমিল্লা জেলা দ্বিতীয় এবং চট্টগ্রাম তৃতীয় হয়েছে। খ-গ্রুপে যশোর জেলা প্রথম, কক্সবাজার জেলা দ্বিতীয় এবং নারায়ণগঞ্জ জেলা তৃতীয় হয়েছে। গ-গ্রুপে লালমনিরহাট জেলা প্রথম, মাদারীপুর জেলা দ্বিতীয় এবং রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ তৃতীয় হয়েছে। ঘ-গ্রুপে র‌্যাব-৭ প্রথম, র‌্যাব-৫ দ্বিতীয় এবং র‌্যাব-১৪ তৃতীয় হয়েছে। ঙ-গ্রুপে ডিএমপির সিটিটিসি প্রথম, ডিবি দ্বিতীয় এবং ওয়ারী বিভাগ তৃতীয় হয়েছে। চ-গ্রুপে হাইওয়ে পুলিশ প্রথম, এপিবিএন দ্বিতীয় এবং রেলওয়ে পুলিশ তৃতীয় হয়েছে।

চোরাচালান মালামাল উদ্ধারে প্রথম সিএমপি
২০১৬ সালে চোরাচালান মালামাল উদ্ধারে ক-গ্রুপে সিএমপি প্রথম, দিনাজপুর জেলা দ্বিতীয় এবং বগুড়া জেলা তৃতীয় হয়েছে। খ-গ্রুপে নাটোর জেলা প্রথম, যশোর জেলা দ্বিতীয় এবং ঢাকা জেলা তৃতীয় হয়েছে। গ-গ্রুপে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রথম, জয়পুরহাট জেলা দ্বিতীয় এবং মেহেরপুর জেলা তৃতীয় হয়েছে। ঘ-গ্রুপে র‌্যাব-৭ প্রথম, র‌্যাব-৫ দ্বিতীয় এবং র‌্যাব-৯ তৃতীয় হয়েছে। ঙ-গ্রুপে ডিএমপির তেজগাঁও বিভাগ প্রথম, ডিএমপির লালবাগ বিভাগ দ্বিতীয় এবং ডিএমপির মিরপুর বিভাগ তৃতীয় হয়েছে। চ-গ্রুপে এপিবিএন প্রথম, রেলওয়ে পুলিশ দ্বিতীয় এবং হাইওয়ে পুলিশ তৃতীয় হয়েছে।

পুলিশ সপ্তাহে কুচকাওয়াজ ট্রফি প্রতিযোগিতায় প্রথম শিল্প পুলিশ দল, যৌথ মেট্রোপলিটন দল দ্বিতীয় এবং তৃতীয় এপিবিএন দল। শিল্ড প্যারেড প্রতিযোগিতায়ও প্রথম শিল্প পুলিশ দল, দ্বিতীয় যৌথ মেট্রোপলিটন দল এবং তৃতীয় এপিবিএন দল।

এদিকে, ৬ ক্যাটাগরিতে যে ২৮৮ পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্য আইজিপি’স ব্যাজ পেলেন তাদের মধ্যে ক্যাটাগরি এ-তে ৫৩ জন, ক্যাটাগরি বি-তে ১০১ জন, ক্যাটাগরি সি-তে ৪৭ জন, ক্যাটাগরি ডি-তে ৩৩ জন, ক্যাটাগরি ই-তে ৩৬ জন এবং ক্যাটাগরি এফ-তে ১৮ জন রয়েছেন।

ক্যাটাগরি এ-তে আইজিপি’স ব্যাজ পেয়েছেন— পুলিশ হেডকোয়াটার্সের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম, মোহাম্মদ কামাল হোসেন, ডিএমপির অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার আর এম ফয়জুর রহমান, ডিএমপির গুলশান বিভাগের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ সাহেদ মিয়া, অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার মোমতাজুল এহসান আহাম্মদ হুমায়ন, অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার কাজী মইনউদ্দিন, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস এম নাজেম আহমেদ, অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার সৈয়দ রফিকুল ইসলাম, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এনসিবি) মো. মমিনুল কবির, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইনামুল হক সাগর,মুন্সিগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সোহেল রানা, কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরুল হাসান, ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রেজাউল করিম, র‌্যাবে কর্মরত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাকিল আহমেদ, কুমিল্লা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. তানভীর সালেহীন ইমন,পুলিশ হেডকোয়াটার্সের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (সাপ্লাই) মো. আনোয়ার সাইদ, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. জামিরুল ইসলাম,বান্দরবান জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার জেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার সম্পা রানী সাহা, গোপালগঞ্জ সার্কেলের জেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার আমীনুল ইসলাম,ডিএমপির জেমরা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার এম এম তারেক রহমান, মিরপুর জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার কাজী মাহবুবুল আলম, কাউন্টার টেরোরিজমের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার নাজমুল ইসলাম, র‌্যাব সদর দপ্তরের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. আবদুল্লাহ আল ইয়াছিন, নারায়নগঞ্জের সিনিয়র এএসপি লিমন রায়, টাঙ্গাইলের গোয়েন্দা শাখার এসআই আসাদুজ্জামান, যাত্রাবাড়ি থানার এসআই জাকির হোসেন, সোয়াট টিমের এসআই মো. ফজলুর রহমান, এসআই এএনএম নুরুজ্জামান, এসআই মো. মাসুদ মিয়া, স্পেশাল এ্যাকশন বিভাগের এসআই মো. মাহফজুল হক চৌধুরী, এসআই মো. দেলোয়ার হোসেন, র‌্যাব-৭ এর এসআই মো. সোহেল মাহমুদ, কুড়িগ্রাম সদর থানার এসআই এম এ ফারুক, পুলিশ সদর দপ্তরের কনফিডেন্সিয়াল শাখার এএসআই মো. আব্দুল হাকিম চঞ্চল, সোয়াট টিমের এএসআই ভবতোষ শীল, এএসআই মো. রেজাউল ইসলাম, ডিএমপির নায়েক মো. আসাদুজ্জামান, সোয়াট টিমের নায়েক মো. আকতারুজ্জামান, কনস্টেবল মো. মাসুদ রানা, কনস্টেবল মো. কামরুজ্জামান, কনস্টেবল মো. সাইফুর রহমান, কনস্টেবল মো. আমিনুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জের কনস্টেবল প্রশান্ত কুমার সরকার, কনস্টেবল ইসতিয়াক আহমেদ, র‌্যাব-৮ এর কনস্টেবল মো. পারভেজ কবির, কনস্টেবল মো. বিপ্লব হোসেন, ডিএমপির কনস্টেবল মো. সোহাগ খন্দকার, বগুড়ার কনস্টেবল কৃষ্ণ কান্ত রায়, র‌্যাব-১ এর কনস্টেবল রাজু বড়ূয়া, র‌্যাব-৮ এর এলএস মো. জাহাঙ্গির আলম, র‌্যাব-১ এর কনস্টেবল সৈয়দ আতিকুর রহমান।

ক্যাটাগরি বি-তে আইজিপি’স ব্যাজ পেয়েছেন— ডিএমপির উপ পুলিশ কমিশনার শ্যামল কুমার মুখার্জী, ডিবির পশ্চিম বিভাগের উপ পুলিশ কমিশনার মো. সাজ্জাদুর রহমান, বরগুনার পুলিশ সুপার বিজয় বসাক, খুলনার পিটিসির এসপি মোছা. তাসলিমা খাতুন, ডিএমপির উপ পুলিশ কমিশনার (প্রোটেকশন) হামিদা পারভীন, বাগেরহাটের এসপি পংকজ চন্দ্র রায়, ডিএমপির মতিঝিল বিভাগের উপ পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, মুন্সিগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম, ডিএমপির উপ পুলিশ কমিশনার এসএম মেহেদী হাসান, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের এআইজি (ওএন্ডএম) ফারুক হোসেন, এআইজি(পিএসএন্ডসপি) আবিদা সুলতানা, এআইজি (ক্রাইম মেট্রো) তানভীর মমতাজ, ডিএমপির ওয়ারী বিভাগের ডিসি মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন, কাউন্টার টেরোরিজমের উপ পুলিশ কমিশনার এএইচ এম আব্দুর রকিব, ডিএমপির লালবাগ বিভাগের উপ পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ ইব্রাহিম খান, এসবির বিশেষ পুলিশ সুপার ড. মোহাম্মদ সাইফুল্লাহ বিন আনোয়ার, রংপুর পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অর্থ) মো. আবু বকর সিদ্দীক, এপিবিএন হেডকোয়াটার্সের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহাজাদা মো. আসাদুজ্জামান, বরিশাল মেট্রোপলিটনের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার ছালেহ উদ্দিন, গাজিপুর জেলা এসবির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সুলাইমান, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের এসেস্ট শাখার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আজিজুল ইসলাম, হাইওয়ে পুলিশের গাজীপুরে রিজিয়নের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হোসাইন মোহাম্মদ কবির ভূইয়া, র‌্যাব-৩ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মোস্তাক আহমেদ, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের কনফিডেন্সিয়াল শাখার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নেছার উদ্দিন আহমেদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তাসমিয়াহ্ তাহলীল, ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আজবাহার আলী,পুলিশ হেডকোয়াটার্সের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (স্টাফ অফিসার টু অতিরিক্ত আইজিপি) আব্দুল্লাহ আল জহির, র‌্যাব-২ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাহাবুদ্দিন, এসবির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হায়াতুন নবী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এলআইসি) এম এম হাসানুল জাহীদ, ডিএমপির অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার সুদীপ কুমার চক্রবর্তী, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ওএন্ডএম) মো. এহসান সাত্তার, উইমেন সার্পোট এন্ড ইনভেস্টিগেশনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুনন্দা রায়, র‌্যাব-৬ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. এনায়েত হোসেন মান্নান, কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জয়নাল আবেদিন, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জিয়াউর রহমান, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (নরসিংদি) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আপেল মাহমুদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান, ডিএমপির গুলশান বিভাগের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার মানস কুমার পোদ্দার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পিএস টু আইজিপি) মো. রবিউল ইসলাম, দিনাজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, ডিবির দক্ষিণ বিভাগের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার মো. রাজীব আল মাসুদ, ডিএমপির তেজগাও বিভাগের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার ওয়াহিদুল ইসলাম, কাউন্টার টেরোরিজমের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার আব্দুল মান্নান, ডিবি উত্তর বিভাগের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার কাজী শফিকুল আলম, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাছুম আহাম্মদ ভূঞা, এসপিবিএন-২ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুলতানা ফারমানা মাফি, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহফুজুর রহমান আল মামুন, ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. কামরুজ্জামান, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আশরাফ ইমাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আমজাদ হোসাইন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এজেড এম মোস্তাফিজুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জেসমিন কেকা, গাজিপুর পুলিশের স্পেসালাইজড কোম্পানির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মহিউল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোছা. শামিমা পারভীন, ডিবির অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার মো. মাহিদুজ্জামান, ডিএমপির ট্রাফিক উত্তর বিভাগের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার হুমায়রা পারভীন, বাগেরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস, ডিএমপির নিউমার্কেট থানার ওসি (তদন্ত) মো. মতলুবুর রহমান, তেজগাও শিল্পাঞ্চল থানার ওসি (তদন্ত) মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের পুলিশ পরিদর্শক তাজিনা জামান, পিবিআইয়ের গাজিপুরের পুলিশ পরিদর্শক মো. হাফিজুর রহমান, সিএমপির সদরঘাট থানার ওসি মোছাম্মদ মর্জিনা আক্তার মর্জু, ডিএমপির মিরপুর মডেল থানার ওসি (অপারেশনস্) মোহাম্মদ শাহ জালাল আলম, কুষ্টিয়া থানার ওসি মো. ছাব্বিরুল ইসলাম, যশোর ডিবির ওসি মো. ইমাউল হক, পিবিআইয়ের চট্টগ্রাম মেট্রোর ওসি সন্তোষ কুমার চাকমা, বগুড়ার শিবগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মো. কামরুজ্জামান, ডিএমপির গুলশান থানার ওসি (তদন্ত) মো. সালাউদ্দিন মিয়া, বনানী থানার ওসি (তদন্ত) মো. ওয়াহিদুজ্জামান, এসবির এসআই মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের এসআই জাহাঙ্গির আলম, মিরপুর মডেল থানার এসআই মাসুদুর রহমান, সিরাজগঞ্জের ওসি মো. শহিদুল ইসলাম, বগুড়া জেলা ডিবির এসআই মো. মাহবুব উল্লাহ, রাজারবাগের এএসআই মো. আব্দুল হালিম, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের সাপ্লাই শাখার এএসআই মো. সান্টুর রহমান, এএসআই মোহন মিয়া, বনানী থানার এএসআই মো. বিল্লাল ভূইয়া, তেজগাও শিল্পাঞ্চল থানার এএসআই মো. ফরিদ উদ্দিন, রুপনগর থানার এএসআই মো. রাশেদুল ইসলাম, এএসআই মো. আসিফ করিম, এএসআই পলাশ চন্দ্র দে, এসবির এএসআই মো. মোকাম্মেল আলম, এএসআই নাছির উদ্দিন, পুলিশ মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরের এএসআই মো. শহিদুল ইসলাম, কনস্টেবল মো. বশিরউদ্দিন, বগুড়া ডিবির কনস্টেবল মো. হামিদুল ইসলাম, কনস্টেবল গোবিন্দ মহন্ত, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের কনস্টেবল মো. আল আমিন, কনস্টেবল মো. কামরুল ইসলাম, কনস্টেবল মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন, কনস্টেবল মো. রেজাউল করিম, কনস্টেবল মো. সেলিম রেজা, কনস্টেবল মো. খলিল উল্লাহ, রূপনগর থানার কনস্টেবল সোহেল আহাম্মদ, পরিবহন শাখার কনস্টেবল তপন কুমার শর্মা, র‌্যাব-৮ এর ল্যান্স নায়েকএসএম পান্না, সৈনিক মো. গোলাম মোস্তফা।

সি ক্যাটাগরিতে আইজিপি’স ব্যাজ পেয়েছেন— পুলিশ হেডকোয়াটার্সের অতিরিক্ত ডিআইজি (সংস্থাপন) হাবিবুর রহমান, ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার মো. আনোয়ার হোসেন, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের অতিরিক্ত ডিআইজি (এসেস্ট) ড. শোহেব রিয়াজ আলম, অতিরিক্ত ডিআইজি (সাপ্লাই) মো. রেজাউল করিম, ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার (ট্রান্সপোর্ট) মো. আব্দুল কুদ্দুস আমিন, ডিবির উত্তর বিভাগের উপ পুলিশ কমিশনার শেখ নাজমুল আলম, উপ পুলিশ কমিশনার (ডিএমপি সদর দপ্তর ও প্রশাসন) মহা. আশরুফুজ্জামান, উপ পুলিশ কমিশনার মো. ইমাম হোসেন, হাইওয়ে পুলিশ সুপার (গাজীপুর) মো. শফিকুল ইসলাম, এসপিবিএন -১ এর অধিনায়ক মো. হায়দার আলী খান, সিটি এসবির বিশেষ পুলিশ সুপার মো. আজাদ মিয়া, এসবির বিশেষ পুলিশ সুপার (রাজনৈতিক) এজাজ আহমেদ, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের এআইজি (কনফিডেন্সিয়াল) ও স্পেশাল ট্রার্কফোর্স গ্রুপের (এসটিজি) সমন্বয়কারী মো. মনিরুজ্জামান, নড়াইলের পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের এআইজি কাজী জিয়া উদ্দিন, এআইজি (প্রশাসন) রকফার সুলতানা খানম, রাজবাড়ির পুলিশ সুপার সালমা খানম, টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার মাহবুব আলম, নীলফামারির পুলিশ সুপার মো. জাকির হোসেন খান, রাঙ্গামাটির এসপি সাঈদ তরিকুল ইসলাম, পঞ্চগরের এসপি মো. গিয়াস উদ্দিন আহম্মেদ, ১১ আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক (এসপি) শাহীনা আমিন, ডিএমপির উপ পুলিশ কমিশনার (ভিকটিম সার্পোট সেন্টার) ফরিদা ইয়াসমিন, এআইজি রেবেকা সুলতানা, এআইজি (বর্তমানে মিশনে) মো. জালাল উদ্দিন আহম্মেদ চৌধুরী, খুলনা মেট্রোপলিটনের উপ পুলিশ কমিশনার (উত্তর) মো. আবদুল্লাহ আরেফ, ডিএমপির উপ পুলিশ কমিশনার (উত্তরা) বিধান ত্রিপুরা, পুলিশ স্টাফ কলেজের পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন, পিবিআই গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ আর এম আলিফ, ডিএমপির তুরাগ থানার ওসি মাহবুবে খোদা, যশোর শার্শা থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামানসহ মোট ৪৭ জন।

ক্যাটাগরি ডি-তে ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার মীর রেজাউল আলম, রাজশাহী আরআরএফ’র কমান্ডার এসপি শেখ মো. মিজানুর রহমান, পুলিশ হেডকোয়াটার্সের পুলিশ পরিদর্শক এম সাইফুল খালিদসহ ৩৩ জন আইজিপি’স ব্যাজ পেয়েছেন।

ই-ক্যাটাগরিতে হাইওয়ে পুলিশের ডিআইজি মো. আতিকুল ইসলাম, সিআইডির সহকারী পুলিশ সুপার মো. এহসান উদ্দিন চৌধুরী, ফরিদপুর ভাঙ্গা সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. সামছুল হক, র‌্যাব-৮ এর সহকারী পুলিশ সুপার মো. নিজাম উদ্দিন হাওলাদার, নওগা মহাদেবপুর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মো. আব্দুল রাজ্জাক খান, র‌্যাব সদর দপ্তরের ইন্টিলিজেন্টস্ বিভাগের সহকারী পুলিশ সুপার সাইদ আহম্মেদ ও সহকারী পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেনসহ মোট ৩৬ জন এবং এফ ক্যাটাগরিতে ১৮ জন আইজিপি’স ব্যাজ পেয়েছেন।