x

সদ্যপ্রাপ্ত

  •  বিকালের মধ্যেই বিদ্যুৎ বৃদ্ধির ঘোষণা আসছে: বিইআরসি

সংবাদ সম্মেলনে বিপিএমএ

রং উৎপাদনে ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক প্রত্যাহারের দাবি

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৪ নভেম্বর ২০১৭, ২৩:৪৮ | অনলাইন সংস্করণ

বিলাশ দ্রব্য অ্যাখ্যা দিয়ে ভ্যাট আইনে উৎপাদিত রঙের উপর আরোপিত ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ পেইন্ট ম্যানুফ্যাকচারর্স এসোসিয়েশন (বিপিএমএ)। পাশাপাশি এই শিল্প রক্ষায় রং তৈরীর অন্যতম মুখ্য কাঁচামাল মিনারেল টারপেইন্টাইন(এমটিটি) তেলের পর্যাপ্ত সরবরাহ সহ মোট ৪ দফা দাবি জানিয়েছেন তারা।

আজ বিকেল তিনটায় রাজধানীর জাতীয় প্রেসকাবে ভিআইপি লাউঞ্জে এক সংবাদ সম্মেলনে এসকল দাবি জানায় দেশের রং প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানগুলো। তাদের দাবি সরকার রঙকে বিলাস দ্রব্য বললেও মূলত এটি কোন বিলাস দ্রব্য নয়; প্রয়োজনীয় দ্রব্য।

বিপিএমএ সহ-সভাপতি প্রকৌশলী মো. আব্দুর রহমান বলেন, রং কোনভাবেই  বিলাস দ্রব্য নয়। আসবাব শিল্প, যন্ত্রপাতি ও যানবাহনসহ জলযান শিল্পে এটি ক্ষয় প্রতিরোধক হিসেবে ব্যবহৃত হয়। তাই এই দ্রব্যেও উপর সম্পূরক শুল্ক আরোপের যৌক্তিকতা ভিত্তিহীন। তিনি আরও বলেন, চার বছর পূর্বে সরকার এটিকে কেন বিলাস দ্রব্য উল্লেখ করে ভ্যাট আইনে এর উপর ১০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করেছে, তা আমাদের বোধগম্য নয়। পরবর্তীতে শুল্কের হার কমিয়ে ৫ শতাংশে আনা হলেও, গত বাজেটেই এই শুল্ক সম্পূর্ন প্রত্যাহার করার কথা ছিলো সরকারের। কিন্তু সরকার তা করেনি।

রং তৈরীর অন্যতম মূল উপাদান এমটিটি তেলের অপর্যাপ্ততা নিয়ে রং প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানগুলোর ভোগান্তি প্রসঙ্গ টেনে বিপিএমএ সাধারন সম্পাদক এম সামসুজ্জামান বলেন, শুধুমাত্র সরকারি ও সরকার অনুমোদিত রিফাইনারী হতে এমটিটি ক্রয়ের সরকারি নির্দেশের পর বেসরকারি রিফাইনারীগুলো থেকে এমটিটি কেনা বন্ধ হয়ে গেছে আমাদের। এদিকে সরকারি রিফাইনারী থেকে এমটিটি সরবরাহ নিরবিচ্ছিন্ন নয়। অপর্যাপ্ত এমটিটি সরবারহে অনেক রং প্রস্ততকারক প্রতিষ্ঠান আজ বড় লোকশানের মুখে, বিশেষ করে ছোট প্রতিষ্ঠানগুলো। এ সমস্যা সমাধানে সামসুজ্জামান বলেন, সরকার যদি বেসরকারি পর্যায়ে ২/৩ টি এমটিটি উৎপাদকদের রং তৈরীর ছোট প্রতিষ্ঠানগুলোকে এমটিটি সরবরাহের অনুমতি দেয়, তাহলেই এই শিল্প বড় ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পাবে। পাশাপাশি বিপিএমএ সদস্য ছাড়া অন্য প্রতিষ্ঠান বা ট্রেডার যাতে এমটিটি গ্রহন করতে না পারে সেটাও নিশ্চিত করতে হবে।

অনুষ্ঠানে জনস্বাস্থ্যের বিষয়ে গুরুত্ব দিয়ে সীসামুক্ত রং তৈরী নিশ্চিতের প্রতিশ্রুতী দেন রং প্রতিষ্ঠানের মালিকরা। অন্যদিকে রঙের বিএসটিআই মান সনদ বাধ্যতামূলক না করারও দাবি জানান তারা। সংবাদ সম্মেলনে বিপিএমএ সহ-সভাপতি হাজী শফিকুল্লাহ খান সংগঠনের পক্ষে এসকল দাবি তুলে ধরেন। শফিকুল্লাহ খানের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন বিপিএমএ সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুজ্জামান শহীদ খান ও অরুণ মিত্র।
 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে