নিজস্ব ব্র্যান্ডের বৈদ্যুতিক ফ্যান তৈরি করবে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান এটলাস

  নিজস্ব প্রতিবেদক

০৫ জুলাই ২০১৮, ১৮:৫৬ | অনলাইন সংস্করণ

এক সময়ের জনপ্রিয় সরকারি ব্র্যান্ড ‘মিল্লাত’ ফ্যানের অনুরূপ নিজস্ব ব্র্যান্ডের বৈদ্যুতিক ফ্যান তৈরি করবে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান এটলাস বাংলাদেশ লিমিটেড। এ লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠানটি খুব শীঘ্রই একটি প্রকল্প হাতে নেবে। রাষ্ট্রায়ত্ত কারখানায় পণ্য বৈচিত্রকরণ উদ্যোগের অংশ হিসেবে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে। 

আজ বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ স্টিল অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশনের (বিএসইসি) আওতাধীন প্রতিষ্ঠান এটলাস বাংলাদেশ লিমিটেডের ‘থ্রি-এস’ সেন্টার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানানো হয়। শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু রাজধানীর তেজগাঁও শিল্প এলাকায় এ সেন্টার উদ্বোধন করেন। 

বাংলাদেশ ইস্পাত ও প্রকৌশল কর্পোরেশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন শিল্পসচিব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ্। এতে এটলাস বাংলাদেশ লিমিটেডের ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক আ ন ম কামরুল ইসলাম বক্তব্য দেন। 

অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘মিল্লাত ফ্যানের অনুরূপ ফ্যান তৈরির প্রস্তাব একটি সৃজনশীল উদ্যোগ। বর্তমান সরকার এ ধরনের পণ্য বৈচিত্রকরণের উদ্যোগের প্রতি সবসময় সমর্থন দিয়ে আসছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহসী সিদ্ধান্তের ফলে দেশের বিদ্যুৎখাতে ব্যাপক অগ্রগতি অর্জিত হয়েছে।’

আমির হোসেন আমু বলেন, ‘দেশে বর্তমানে বিদ্যুতের উৎপাদন ১৬ হাজার ৪৬ মেগাওয়াট। ২০২১ সালের মধ্যে এটি ২৪ হাজার মেগাওয়াটে উন্নীত হবে। এর ফলে দিন দিন বৈদ্যুতিক ফ্যানের চাহিদা বাড়ছে।’ এটলাসের নিজস্ব ব্র্যান্ডে ফ্যান তৈরির প্রকল্প বাস্তবায়নে শিল্প মন্ত্রণালয় প্রয়োজনীয় নীতি সহায়তা দেবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। 

আমু বলেন, ‘রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠানে উৎপাদিত পণ্য ও সেবার মান বেসরকারিখাতের সাথে ভারসাম্যপূর্ণ করতে শিল্প মন্ত্রণালয় কাজ করছে। অতীতে বিভিন্ন সময় গোষ্ঠিগত স্বার্থে সরকারি কারখানা পানির দরে বিক্রয় করে দেওয়া হয়েছে। এর ফলে জনগণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বর্তমান সরকার এসব কারখানা রাষ্ট্রীয় মালিকানায় ফিরিয়ে এনে উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির উদ্যোগ নিচ্ছে।’

এটলাসের ‘থ্রি-এস’ সেন্টারের সেবার মান অক্ষুণ্ন রেখে একে লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করতে সকল কমকর্তা-কর্মচারীদের পরামর্শ দেন শিল্পমন্ত্রী। পরে মন্ত্রী এটলাস বাংলাদেশ লিমিটেডের থ্রি-এস সেন্টার উদ্বোধন করেন।

প্রায় দুই হাজার ২৫৬ বর্গফুট জায়গার উপর এ সার্ভিস সেন্টার নির্মাণ করা হয়েছে। এটি সার্ভিস সেন্টারের পাশাপাশি এটলাসের ‘শো-রুম’ হিসেবেও ব্যবহৃত হবে। এখানে মোটরসাইকেলের প্রয়োজনীয় স্পেয়ার পার্টস বিক্রি হবে। এটলাস গ্রাহক ছাড়া অন্য কোম্পানির মোটরবাইকের জন্যও এই সার্ভিসিং সেবার দুয়ার উন্মুক্ত থাকবে। ফলে এ সেন্টার এটলাস বাংলাদেশের জন্য আয়ের একটি নতুন উৎস হিসেবে অবদান রাখবে বলে আশা করা হচ্ছে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে