কমানো হলো মোবাইল ব‌্যাংকিংয়ের লেনদেন

প্রকাশ | ১১ জানুয়ারি ২০১৭, ১৮:৫৬ | আপডেট: ১১ জানুয়ারি ২০১৭, ২৩:৪৪

নিজস্ব প্রতিবেদক

মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে সন্ত্রাস-জঙ্গি অর্থায়নসহ অন্যান্য জালিয়াতি প্রতিরোধে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের ক্ষেত্রে কিছু বিধি নিষেধ আরোপ করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এখন থেকে একটি জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহারে একটি মোবাইল সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানে একটি মাত্র একাউন্ট চালু রাখা যাবে।

আজ বুধবার এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পেমেন্ট সিস্টেমস বিভাগ।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, একদিনে দুই বার এবং সর্বোচ্চ ১৫ হাজার টাকা জমা (ক্যাশইন) করা যাবে। আগে দিনে ২৫ হাজার টাকা করে পাঁচ বার টাকা জমা দেওয়া যেত। এবং দিনে দুই বার টাকা উত্তোলনের (ক্যাশ আউট) সর্বোচ্চ সীমা মাত্র ১০ হাজার টাকা; আগে যেখানে ৩ বারে ২৫ হাজার টাকা করে ক্যাশ আউট করা যেত।

ওই সার্কুলারে বলা হয়েছে, একজন ব্যক্তি কোনো মোবাইল সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের (এমএফএস প্রোভাইডার) সঙ্গে একাধিক মোবাইল হিসাব চলমান রাখতে পারবেন না। কোনো গ্রাহকের একই জাতীয় পরিচয়পত্র বা স্মার্ট কার্ড বা অন্য কোন পরিচয়পত্রের বিপরীতে একাধিক মোবাইল হিসাব থাকলে উক্ত গ্রাহকের সঙ্গে আলোচনা করে তার বেছে নেওয়া যেকোন একটি মোবাইল হিসাব চালু রেখে অন্য হিসাব গুলো বন্ধ করতে হবে। কোনো ক্ষেত্রে গ্রাহকের সাথে আলোচনা করে বন্ধ করা সম্ভব না হলে সর্বশেষ ব্যবহৃত একাউন্টটি রেখে বাকিগুলো বন্ধ করে দিতে হবে। বন্ধ করা একাউন্টগুলোর সমুদয় অর্থ গ্রাহককে ফেরত দিতে হবে। এই নির্দেশ কার্যকর করে প্রতিমাসে বাংলাদেশ ব্যাংককে জানাতে হবে। এবং মাসিক মোট লেনদেন পরিমানও জানাতে হবে।

ওই সার্কুলারে আরও বলা হয়েছে, দিনে সর্বোচ্চ ২ বার এবং মাসে সর্বোচ্চ ২০ বার ক্যাশইন করা যাবে। এখানে দিনে ৫ বার এবং মাসে ২০ বার ক্যাশইন করা যেত। আগে দৈনিকের লেনদেনের সর্বোচ্চ সীমা ছিল ২৫ হাজার টাকা এবং মাসে দেড় লাখ টাকা। এখন দিনে ১৫ হাজার এবং মাসে ১ লাখ টাকা ক্যাশইন করা যাবে।

ক্যাশ আউটের দিনে ৩ বার থেকে কমিয়ে ২ বার করা হয়েছে। তবে মাসিক ১০ বার অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে। দিনে সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা এবং মাসে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা ক্যাশ আউট করা যাবে। আগে দিনে ২৫ হাজার এবং মাসে দেড় লাখ টাকা ক্যাশআউট করা যেতো। এছাড়া টাকা ক্যাশইন করার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ৫ হাজার টাকার বেশি ক্যাশ আউট করা যাবে না।