ঢাবির ৫ শিক্ষার্থীকে মারধর করল নীলক্ষেত বই ব্যবসায়ীরা

  বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

২০ জুলাই ২০১৮, ০০:২২ | অনলাইন সংস্করণ

রাজধানীর নীলক্ষেতে বই কেনা নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায় দোকানদারদের মারধরের শিকার হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ৫ শিক্ষার্থী। এ ঘটনায় এক দোকান কর্মচারীও মারধরের শিকার হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার  রাত সাড়ে নয়টার দিকে রাজধানীর নীলক্ষেতে বই মার্কেটে এই ঘটনা ঘটে।

মারধরের শিকার শিক্ষার্থীরা হলেন, শান্তি ও সংঘর্ষ বিভাগের ২য় বর্ষের বাধন, দর্শন বিভাগের মাহিন, উইমেন অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের নিপুন, স্বাস্থ্য অর্থনীতি বিভাগের ১ম বর্ষের রুবেল এবং ব্যাংকিং অ্যান্ড ইন্সুরেন্স বিভাগের তালেখ। আহত দোকান কর্মচারীর পরিচয় জানা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রাত ৮ টার দিকে মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হলের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীরা নীলক্ষেতে বই কিনতে গিয়ে বাকবিতণ্ডায় জড়ান। পরে একই হলের দ্বিতীয় বর্ষের কয়েকজন শিক্ষার্থী ঘটনাস্থলে যান। এর পর তারাও বাকবিতণ্ডায় জড়ালে দোকানদাররা জড়ো হয়ে এদের ৫ জনকে মারধর করেন। এর পর তাদের ভেতরে রেখে মার্কেটের গেট আটকিয়ে দেন।

রাত ৯ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হলের শিক্ষার্থীরা তাদের উদ্ধার করতে গেলে ওই এলাকায় উত্তেজনা তৈরী হয়। রাত সাড়ে নয়টার দিকে পুলিশের সহযোগিতায় ওই পাঁচজনকে উদ্ধার করা হয়।

এ সময় ওই দোকানের একজন কর্মচারী বের হলে তাকে মারধর করেন উপস্থিত শিক্ষার্থীরা। পরে পুলিশ এসে ওই কর্মচারীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে শান্তি ও সংঘর্ষ বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী বাধন বলেন, 'আমাদের জুনিয়র প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের সাথে দোকানদাররা খারাপ ব্যাবহার করে। আমরা বিষয়টি জানতে ঘটনাস্থলে গেলে আমাদের উপর অতর্কিত হামলা করা হয়।'

এ বিষয় জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের জিয়াউর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মাসুদ লিমন বলেন, 'আমার হলের পাঁচজন শিক্ষার্থীকে দোকানদাররা তুচ্ছ কারণে মারধর করে আটক করে রাখে। পুলিশের সহযোগীতায় তাদের উদ্ধার করা হয়। আমরা প্রশাসনের কাছে দাবী জানিয়েছি, দোষীদের বিচার করতে হবে।'

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে