পাঠ্যবইয়ে ভুল থাকার দায় স্বীকার শিক্ষামন্ত্রীর

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১০ জানুয়ারি ২০১৭, ১১:৫৩ | আপডেট : ১০ জানুয়ারি ২০১৭, ১৩:৪৭ | অনলাইন সংস্করণ

পাঠ্যবইয়ে ভুল থাকার কথা স্বীকার করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। এ সময় হুঁশিয়ার উচ্চারণ করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, নতুন পাঠ্যবইয়ে ভুলের জন্য দায়ীদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে পূর্ব নির্ধারিত এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী এ দায় স্বীকার করেন।

কম সময়ে ছাপতে গিয়ে পাঠ্যপুস্তকে ভুল হয়েছে স্বীকার করে নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ছোট ছোট ভুল ছাপার মিসটেকের কারণে হতে পারে। কিন্তু বড় বড় ভুল যেমন: কাভার পেইজে বড় অক্ষরে ছাপার শব্দে বানান ভুল, কবিতা বিকৃতি। এগুলো ক্ষমার অযোগ্য।
 
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বড় ভুলগুলো কীভাবে সংশোধন করা যায়, তা নিয়ে কাজ করা হচ্ছে। ভুলত্রুটির বিষয়ে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) একটি কমিটি করেছে। কেন হল, কারা দায়ী- তা বের করা হবে। প্রাথমিকভাবে দুইজনকে চিহ্নিত করে ওএসডি করা হয়েছে। জড়িত সবাইকে শাস্তি দেওয়া হবে।

তিনি জানান, তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পাওয়ার পর ভুল-ত্রুটি সংশোধনের উদ্যোগ নেওয়া হবে। এ ব্যাপারে নেতিবাচক প্রচারণা না করার জন্যও আহ্বান জানান শিক্ষামন্ত্রী।

প্রসঙ্গত, চলতি শিক্ষাবর্ষের প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের কয়েকটি বইয়ের ভুলত্রুটি নিয়ে ইতিমধ্যে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। আর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও এ নিয়ে বইছে সমালোচনার ঝড়।
 
বিষয়টি খতিয়ে দেখতে জাতীয় পাঠ্যক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) সদস্য (অর্থ) অধ্যাপক কাজী আবুল কালামকে আহ্বায়ক করে গঠিত তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে ভুলত্রুটি পর্যালোচনা করে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।
 
প্রথম শ্রেণির বাংলা বইয়ে ‘অ’ দিয়ে বাক্য বানাতে একটি ছাগলের ছবি দিয়ে লেখা হয়েছে, ‘অজ (ছাগল) আসে’। ‘আ’ এর ক্ষেত্রে ‘আম’ শব্দ বানিয়ে লেখা হয়েছে ‘আম খাই’। কিন্তু ‘আম খাই’ বোঝাতে একটি আম গাছের নিচের অংশে দুই পা তুলে একটি ছাগলের দাঁড়িয়ে থাকায় ছবি দেওয়া হয়েছে। অপ্রচলিত শব্দ ‘অজ’ ব্যবহার ও ‘আম খাওয়া’ বোঝাতে ছাগলের ছবি নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে।
 
আর তৃতীয় শ্রেণির বাংলা বইয়ে ‘আদর্শ ছেল’ কবিতাটি বিকৃত করা হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে