নাজমুল হুদা টিকে যাওয়ায় নানা প্রশ্ন

  নিজস্ব প্রতিবেদক

০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৫:১০ | অনলাইন সংস্করণ

দুদকের মামলায় চার বছরের দণ্ডপ্রাপ্ত তৃণমূল বিএনপির সভাপতি ও বিএনপির সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার নাজমুল হুদার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। গতকাল শনিবার তাকে ঢাকা-১৭ আসনের বৈধ স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করা হয়। এর আগে জেলা রিটার্নিং অফিসার তার মনোনয়নপত্র বাতিল করেছিলেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত হওয়ার পরও তার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এটা কীভাবে সম্ভব, সে প্রশ্ন তুলেছেন রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমও।

জানতে চাইলে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, এটা বুঝলাম না। একজন দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তির মনোনয়নপত্র কীভাবে বৈধ হয়। নির্বাচন কমিশন যদি সাজার ব্যাপারটা ঠিকমতো না বোঝে, তা হলে তো সংবিধান পরিপন্থী কাজ হয়ে যাবে। গতবারও মহীউদ্দীন খান আলমগীরসহ অনেকেই সুযোগ নিয়েছিলেন; কিন্তু তা ঠিক হয়নি। তিনি আরও বলেন, আমার কথা হচ্ছে, কনভিকশন (ফৌজদারি অপরাধে দোষী সাব্যস্ত বা দণ্ড) স্থগিত হয় না। কনভিকশন স্থগিত করলে তা সংবিধান পরিপন্থী হয়ে যায়। জানি না, নির্বাচন কমিশন সঠিকভাবে হোক আর ভুলভাবে হোক, একটা আদেশ দিয়ে দিয়েছে। আশা করি ওই আসনে তার প্রতিপক্ষ প্রার্থী একটা পদক্ষেপ নেবে।

সড়ক ও জনপথের এক ঠিকাদারের কাছ থেকে ঘুষ গ্রহণ ও দুর্নীতির অভিযোগে বিএনপি সরকারের যোগাযোগমন্ত্রী নাজমুল হুদাকে সাত বছর ও তার স্ত্রী সিগমা হুদাকে তিন বছর কারাদণ্ড দেন বিচারিক আদালত। হুদা দম্পতির আপিল পুনঃশুনানি শেষে গত বছর ৮ নভেম্বর নাজমুল হুদার সাজা কমিয়ে চার বছর করেন হাইকোর্ট। এ ছাড়া সিগমা হুদা এরই মধ্যে যে পরিমাণ সাজা খেটেছেন, তা-ই শাস্তি হিসেবে গণ্য করা হয় ওই রায়ে। গত ১৮ নভেম্বর এই রায়ের অনুলিপি প্রকাশিত হয়, যাতে নাজমুল হুদাকে ৪৫ দিনের মধ্যে আত্মসমর্পণেরও নির্দেশ রয়েছে। ২০০৭ সালের ২১ মার্চ দুদক মামলাটি করে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে দুদকের একজন শীর্ষ আইনজীবী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, এটা কীভাবে সম্ভব? নাজমুল হুদার মনোনয়নপত্র বৈধ হলে খালেদা জিয়ারও বৈধ ঘোষণা করতে হবে। জানতে চাইলে সাবেক আইনমন্ত্রী শফিক আহমেদ বলেন, সংবিধানের ৬৬ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী নৈতিক স্খলনজনিত অপরাধে কেউ অন্যূন দুই বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হলে তিনি আর নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না। কী কারণে তার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেছে, সেটা ইসিই ভালো বলতে পারবে।

ফৌজদারি অপরাধে দুই বছরের বেশি মেয়াদে দ-িত হওয়ায় এবার বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ বেশ কয়েক জন শীর্ষস্থানীয় রাজনীতিকের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে