অবশেষে চিঠি নিলো জামায়াত, স্বতন্ত্র নিয়েও চিন্তা

  নিজস্ব প্রতিবেদক

০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ১১:২৯ | আপডেট : ০৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৭:৫৭ | অনলাইন সংস্করণ

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কাঙ্ক্ষিত আসন না পাওয়ায় মনোনয়নের চিঠি বিএনপিকে ফেরত দেয় জামায়াত। চিঠি ফেরত দেওয়ার পর গতকাল শনিবার গভীর রাতে দুই দলের নেতাদের আলোচনায় তা সমাধান হলে চিঠি আবারও ফেরত নেয় জামায়াত। তবে কয়েকটি আসনে এখনও স্বতন্ত্র প্রার্থী রাখার চিন্তা করছে দলটি।  

আজ রোববার এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে আবার বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেবে জামায়াত। কারণ বিএনপি তাদের যেসব আসনে ছাড় দিয়েছে সেগুলোর মধ্যে ঠাকুরগাঁও-২ ও রংপুর-৫ আসনে বিএনপি ও নাগরিক ঐক্যের আরও একজন করে প্রার্থীকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

বিএনপি যেসব আসন জামায়াতকে ছাড় দিয়েছে -

১/ ঠাকুরগাঁও-২ -মাওলানা আবদুল হাকিম

২/ দিনাজপুর-১ - মাওলানা মোহাম্মদ হানিফ

৩/ দিনাজপুর-৬ - মোহাম্মদ আনোয়ারুল ইসলাম

৪/ নীলফামারী-২ - মুক্তিযুদ্ধা মনিরুজ্জামান মন্টু

৫/ নীলফামারী-৩ - মোহাম্মদ আজিজুল ইসলাম

৬/ রংপুর-৫ – অধ্যাপক গোলাম রব্বানী

৭/ গাইবান্ধা-১ - মাজেদুর রহমান সরকার

৮/  সিরাজগঞ্জ-৪ - মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান

৯/ পাবনা-৫ - মাওলানা ইকবাল হুসাইন

১০/ ঝিনাইদহ-৩ - অধ্যাপক মতিয়ারু রহমান

১১/ যশোর-২ - আবু সাঈদ মুহাম্মদ শাহাদাত হোসাইন

১২/ বাগেরহাট-৩ - অ্যাডভোকেট আবদুল ওয়াদুদ

১৩/ বাগেরহাট-৪ - অধ্যাপক আবদুল আলীম

১৪/ খুলনা-৫ - অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার

১৫/ খুলনা-৬ – মাওলানা আবুল কালাম আযাদ

১৬/ সাতক্ষীরা-২ - মুহাদ্দিস আবদুল খালেক

১৭/ সাতক্ষীরা-৪ - গাজী নজরুল ইসলাম

১৮/ পিরোজপুর-১ শামীম সাঈদী।

১৯/ ঢাকা-১৫ - ডা. শফিকুর রহমান

২০/ কুমিল্লা-১১ - ডা. সৈয়দ আবদুল্লাহ মো. তাহের

২১/ চট্টগ্রাম ১৫ – আ ন ম শামসুল ইসলাম

২২/ কক্সবাজার-২ - হামিদুর রহমান আযাদ

জামায়াতের নায়েবে আমির অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার বলেন, ‌‘আমরা ২২টি আসনে চূড়ান্ত মনোনয়নের চিঠি পেয়েছি। শুরুতে ২৫টি আসন দেওয়ার কথা হয়েছিল। এখন ৩টি কমে গেছে। কিন্তু এই তিনটি আসনই আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এখন এসব আসন নিয়ে আলোচনা চলছে। আমার জানা মতে, আরও কিছু আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী করার বিষয়েও আলোচনা হচ্ছে।’

এর আগে ২০-দলীয় নির্বাচনী জোটের অন্যতম শরিক জামায়াতকে ১৯টি আসনে চূড়ান্তভাবে ছাড় দেয় বিএনপি। সে অনুযায়ী দলটির হাতে চিঠিও তুলে দেওয়া হয়। কিন্তু জামায়াত এতে আপত্তি তোলে। কারণ প্রাথমিকভাবে দলটিকে ২৫টি আসনে ছাড় দেওয়া হয়েছিল এবং সেভাবেই প্রস্তুতি নিয়েছিল জামায়াত। একটি আসন রেখে বাকি ২৪টি আসনে ভোটের লড়াইয়ে নামতে চূড়ান্ত প্রস্তুতি নেয় জামায়াত।

জামায়াত সূত্র জানায়, সিলেট-৫ আসনে তাদের পাশাপাশি জোট শরিক জমিয়তে উলামায়ে ইসলামকেও ছাড় দিয়ে চিঠি দেয় বিএনপি এবং পিরোজপুর-১ আসনে দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর পুত্র শামীম সাঈদীকে প্রার্থী না-করার সিদ্ধান্ত নেয়। আসন বণ্টনসহ এসব বিষয় নিয়ে জামায়াত-বিএনপি সংকট দেখা দেয়।

এর পর গতকাল রাতে বৈঠক ডাকে রাজনৈতিক দল হিসেবে নিবন্ধন বাতিল হওয়া দলটি। বৈঠকে জামায়াত নেতারা সিদ্ধান্ত নেন চিঠি ফেরত দেওয়ার। একই সঙ্গে দলটি নির্বাচন করবে কি না, তা নিয়েও পর্যালোচনা করা হয়।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে