‘ভোটের ভাগ্য সন্ত্রাসীদের হাতে দেওয়া যাবে না’

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৪:০১ | আপডেট : ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৬:০৫ | অনলাইন সংস্করণ

ছবি : ফোকাস বাংলা

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটের ভাগ্য সন্ত্রাসীদের হাতে তুলে দেওয়া যাবে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা। আজ বৃহস্পতিবার সকালে নির্বাচন কমিশনে আইনশৃঙ্খলাবিষয়ক সমন্বয় সভায় এমন মন্তব্য করেন তিনি।

সিইসি বলেন, ‘ভোটের ভাগ্য সন্ত্রাসীদের হাতে তুলে দেওয়া যাবে না। তাদের নিয়ন্ত্রণ করতে হবে, প্রয়োজনে আটক করতে হবে। প্রয়োজনে ২০১৪ সালের অবস্থা মাথায় রেখে নিরাপত্তা ছক তৈরি করতে হবে। এবারের নির্বাচনে আপনাদের দায়িত্ব জনগণের জীবন রক্ষা, মালামাল রক্ষা, দেশের পরিবেশ পরিস্থিতি শান্ত রাখা।’

তিনি বলেন, ‘আমি প্রত্যাশা করব, পেশাদারি ও নিরপেক্ষ দায়িত্ব পালনের অভিজ্ঞতা ও মানসিকতা নিয়ে এবারের নির্বাচন মোকাবেলা করতে পারব। এবারে যেন সেবারের মতো তাণ্ডব না ঘটে, সে রকম পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে হবে।’

‘২০১৪ সালের নির্বাচনের অবস্থা আমাদের ভুলে গেলে চলবে না’-এ কথা উল্লেখ করে নুরুল হুদা বলেন, ‘২০১৪ সালে একটা ভয়ঙ্কর অবস্থার সৃষ্টি হয়েছিল। সে অবস্থার আলোকে আমাদের এ বছরের নির্বাচনের প্রস্তুতির রূপরেখা অবলম্বন করা প্রয়োজন। তখন মাঠে সব বাহিনী ছিল, সশস্ত্র বাহিনী, পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি ছিল-তবুও আমরা দেখেছি পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছে, প্রিজাইডিং অফিসার নিহত হয়েছে, ম্যাজিস্ট্রেট নিহত হয়েছে, শত শত মানুষ নিহত হয়েছে, শত শত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভস্মীভূত হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সেটা কী প্রেক্ষিতে হয়েছিল, সেটা আমরা কেন নিয়ন্ত্রণ করতে পারিনি, সে প্রসঙ্গ আলোচনা করার প্রয়োজন আমি মনে করি না। সেটা আমাদের মনে রাখতে হবে, ভুলে গেলে চলবে না। সে অবস্থা থেকে কীভাবে উত্তরণ করা যায়, সে অবস্থার পুনরাবৃত্তি যাতে না হয়, সেই পরিবেশ পরিস্থিতির সৃষ্টি যাতে না হয়, সেদিকে সতর্কতার সাথে দৃষ্টি রাখতে হবে।’

নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে সিইসি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের জন্য প্রয়োজনীয় মালামাল শতকরা ৯৫ ভাগের বেশি সম্পন্ন হয়েছে। কেবলমাত্র ব্যালট পেপার ছাপানোর মতো টুকিটাকি কাজ বাকি আছে। ভোটকেন্দ্র নির্ধারিত হয়েছে, ভোটারদের তালিকা চূড়ান্ত করা হয়েছে।’

ইভিএম প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ইভিএম ব্যবহার করতে চাই, কেননা মাস্তানদের হাতে ভোটারদের সিদ্ধান্ত ছেড়ে দেওয়া যাবে না। বাক্স ছিনতাইকারীর হাত থেকে ভোটারদের মুক্তি দিতে হবে। তার প্রধান ও প্রথম উপায় যে পদ্ধতিতে ভোট চলছে, তার পরিবর্তে আরেকটি পদ্ধতি আনতে হবে।’

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে