• অারও

টিভি নাটকেই বাংলা শব্দের সংকট!

  জাহিদ ভূঁইয়া

১৬ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ০১:০৯ | অনলাইন সংস্করণ

আয়নোস্ফিয়ারের আবিষ্কার বদলে দিয়েছিল সমগ্র বিশে^র দৃশ্যপট। প্রচার মাধ্যমের উন্নয়নে আবিষ্কার হয়েছিল টেলিভিশন নামের একটি যন্ত্র। সময়ের পালাবদলে এই যন্ত্রে যুক্ত হয় বিনোদনের নানা আয়োজন। নাটকও তাই মঞ্চ থেকে উঠে আসে টেলিভিশনের পর্দায়। কয়েক দশকের পালাবদলে টেলিভিশনের জন্যই নির্মিত হতে থাকে নাটক। এক সময় টেলিভিশন নাটক তৈরি হতো সাহিত্যনির্ভর গল্প নিয়ে। সে নামগুলোয় পাওয়া যেত কাব্যিকতার ছোঁয়া। এখন সে দিন নেই, নাটক-টেলিছবিতে দেখা যায় ইংরেজি নামের ছড়াছড়ি। ‘ব্রেক-আপ ব্রেক-ডাউন আফটার ম্যারেজ’, ‘কট ম্যারেজ’, ‘হিট উইকেট’, ‘ব্যাকআপ আর্টিস্ট’, ‘আইইএলটিএইচ’, ‘ফোকাল পয়েন্ট’, ‘হেল মেট’, ‘হাউস হাসব্যান্ড’Ñ এগুলো সবই নাটক-টেলিছবির নাম! এ তালিকা অবশ্য এখানেই শেষ নয়। তালিকাতে আরও আছে ‘ফেয়ার গেম’, ‘হোয়াট ইজ ইয়োর ফাদারস নেম’, ‘হোপলেস ম্যান’, ‘লার্নড ম্যান’, ‘শর্ট টেম্পার’, ‘হান্ড্রেড আউড অব হান্ড্রেড’, ‘টেনশন টিউশন’ প্রভৃতি। বাংলা নাটকে অযথা ইংরেজি নামকরণ নিয়ে অনেকে প্রশ্ন তুলছেন। বিশেষ করে ‘উদ্ভট’ ইংরেজি নামগুলো নাটক-টেলিছবি সংশ্লিষ্টদের হাসির পাত্র ছাড়া আর কিছুই করছে না। কয়েক বছর ধরে চিত্রটা একেবারে পাল্টে গেছে। এখন বাংলা নামের নাটক খুব কম চোখে পড়ে। যেগুলো আছে, সেখানেও দীনতা লক্ষ করা যায়। পুরো নাটকে কোনো ইংরেজি সংলাপ নেই অথচ নাম ইংরেজিতে, এটাকে বাড়াবাড়ি ছাড়া কী বলা যায়?

এ বিষয়ে অভিনেতা ড. ইনামুল হক বলেন, ‘কিছু ইংরেজি শব্দ এমনভাবে বাংলা ভাষায় মিশে আছে যে, ইচ্ছে করলেই তা সরানো যাবে না কিংবা এর বাংলা অর্থ বের করা মুশকিলÑ এমন অজুহাতে ইংরেজি নামের প্রতি ঝুঁকেছেন নাট্যকার ও নির্মাতারা। গল্পের সঙ্গে মানানসই ও ভালো বাংলা প্রতিশব্দ পাওয়া না গেলে নাম ইংরেজি হতেই পারে। কিন্তু অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এমনটি লক্ষ করা যাচ্ছে না।’

আরেক অভিনেতা আবুল হায়াত বলেন, ‘বেশিসংখ্যক দর্শকের কাছে পৌঁছার জন্য অনেকে ইংরেজি নাম রাখেন। কিন্তু এমন অনেক নামই পাওয়া যাচ্ছে, যেগুলোর অর্থ দর্শকও ঠিক জানে না। তা হলে? আবার কিছু নাম দেখে সংশ্লিষ্টদের পড়াশোনার দৌড় টের পাওয়া যায়। যাচ্ছেতাই একটি নাম নির্বাচন করে তারা চ্যানেলে নাটক জমা দিচ্ছেন। কোন নাটকের নাম প্রয়োজনে আর কোনটা অপ্রয়োজনে ইংরেজিতে রাখা হয়েছে, সেটা হয়তো নিজেরাও বলতে পারবেন না!’

টিভি নাটকের এই দুই গুণী অভিনেতা-নির্মাতার কথার সারাংশ হচ্ছে, ইংরেজি নাম রাখাটা ফ্যাশন হয়ে গেছে! ঠিক আছে, আমাদের খাঁটি বাংলা শব্দ খুবই সীমিত। যে ইংরেজি শব্দগুলো সাধারণ জীবনযাপনের সঙ্গে মিশে গেছে, তার ব্যবহার হতেই পারে। তাই বলে বাংলাকে তাচ্ছিল্য করে যাচ্ছেতাইভাবে ইংরেজির ব্যবহার চলমান থাকবে? এর কী প্রতিকার নেই? সুন্দর সুন্দর নামে এখনো কবিতা, উপন্যাস, মঞ্চনাটক তৈরি হচ্ছে। এমনকি চলচ্চিত্রেও সেটা বহাল রয়েছে। পাঠক-দর্শক সেগুলো উপভোগ করছেন। কেবল টিভি নাটকের বেলাতেই বাংলা শব্দের সংকট দেখা দিল!

একমাত্র বাংলা ভাষার জন্যই যুদ্ধ করতে হয়েছে, দিতে হয়েছে জীবন। বিশ্বে কোটি কোটি মানুষ বাংলায় কথা বলছেন। ইংরেজির ব্যবহার বেড়ে যাওয়ায় চলচ্চিত্রে ইংরেজি নামকরণ নিয়ম করে বন্ধ করা হয়েছে। এবার বুঝি সময় এসেছে নাটক-টেলিছবিতে অনর্থক ইংরেজি নামকরণ বন্ধের।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে