‘নোলক’ ছবি প্রশ্নবিদ্ধ হবে : শাকিব খান

  বিনোদন প্রতিবেদক

২২ জুলাই ২০১৮, ১৭:৪৭ | আপডেট : ২২ জুলাই ২০১৮, ২০:২৮ | অনলাইন সংস্করণ

সুপারস্টার শাকিব খান অভিনয় করেছেন ‘নোলক’ সিনেমায়। ছবির কাজও প্রায় শেষের দিকে। তবে ছবিটি ‘প্রশ্নবিদ্ধ হবে’ হবে বলে দৈনিক আমাদের সময় অনলাইনের কাছে মন্তব্য করেছেন এই সুপারস্টার।

কিছুটা ভারাক্রান্ত মনেই এমন মন্তব্য করেছেন তিনি। কারণ ‘নোলক’ ছবির পরিচালক রাশেদ রাহা সিনেমাটি ‘ছিনতাই’ হওয়া নিয়ে আজ  রোববার বিকেল পৌনে চারটায় পরিচালক ইফতেখার চৌধুরীর বিরুদ্ধে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতিতে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। একই ঘটনায় প্রযোজক সাকিব ইরতেজা চৌধুরী সনেটের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ প্রযোজক-পরিবেশক সমিতিতেও অভিযোগ দায়ের করেন রাশেদ রাহা।

এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হয় শাকিব খানের কাছে। প্রতিক্রিয়ায় ঢাকাই চলচ্চিত্রের নাম্বার ওয়ান এই নায়ক বললেন, ‘নোলক ছবির কাজ প্রায় ৯০ ভাগ কাজ শেষ। অল্প কিছু কাজ বাকি আছে। কিন্তু এরমধ্যেই পরিচালক পরিবর্তন করে অন্য পরিচালককে নেওয়া কতটা ঠিক হয়েছে। আর রাশেদ রাহা নতুন একটা ছেলে, বয়সেও তরুণ। প্রযোজক পরিচালক পরিবর্তন করতেই পারেন। তবে এক্ষেত্রে রাশেদ রাহার কাছ থেকে অনুমতি নেওয়া উচিত ছিল।’

শাকিব খান আরও বলেন, ‘ইফতেখার চৌধুরী বয়সে রাহার চেয়ে অনেক বড়। কাজের ক্ষেত্রেও সিনিয়র। তাই এ সময়ে এসে হঠাৎ এমন কাণ্ড করা কারও ঠিক হয়নি। এখন নোলক ছবি প্রশ্নবিদ্ধ হবে’।

এর আগে বাংলাদেশ পরিচালক সমিতি ও প্রযোজক-পরিবেশক সমিতিতে লিখিত অভিযোগ করার পর পরিচালক রাশেদ রাহা দৈনিক আমাদের সময় অনলাইনকে বলেন, ‘একটা ছবি একজন পরিচালকের সন্তান। আমার সন্তান নিয়ে যাচ্ছে। আমার ছবি ছিনতাই করেছে। এটা আমার সঙ্গে অনেক বড় ধরনের অন্যায় করেছে। আমি আমার ছবি ফেরত চাই। একটা ছবি একজন পরিচালকের। প্রযোজক ছবির একটা অংশ। আমার মেধা ও শ্রম দিয়ে ছবির ৮৫ ভাগ কাজ শেষ করেছি। সেখানে অন্য একজন পরিচালক কীভাবে কাজ করেন। আমার সঙ্গে কেন এই অন্যায় করা হলো। যেখানে শাকিব ভাইও আমার সঙ্গে আছেন। তাকেও এ বিষয়ে কিছুই জানানো হয়নি। পুরো বিষয়টা নিয়ে আমি হতবাক। আমি মানসিকভাবে ভঙ্গুর অবস্থায় রয়েছি’।

এ সম্পর্কে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির মহাসচিব বদিউল আলম খোকন বলেন,‘কিছুক্ষণ আগে আমি অভিযোগপত্র হাতে পেয়েছি। অভিযোগ পাওয়ার পর আমি ইফতেখার চৌধুরীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেছি। যেহেতু ইফতেখার ভারতে রয়েছেন তাই ওই টিমের প্রোডাকশন ম্যানেজারকে ফোন করে ইফতেখারকে চেয়েছি। কিন্তু তাকে পাওয়া যায়নি। একটা ছবির মূল পরিচালক যদি ছবি করতে আগ্রহী না হয়, সেক্ষেত্রে প্রযোজক অন্য পরিচালক দিয়ে ছবি শেষ করতে পারেন। কিন্তু পরিচালকের অনুমতি ছাড়া অন্য পরিচালককে দিয়ে ছবির শেষ করার কোনো নিয়ম নেই। এমন অনিয়মের প্রমাণ পেলে ইফতেখার চৌধুরীর সদস্যপদ বাতিল হয়ে যেতে পারে। এটা আমাদের মিটিংয়ের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নেব।’

ছবিতে শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন ববি। এ ছাড়া আরও অভিনয় করেছেন ওমর সানি, মৌসুমী, তারিক আনাম খান, নিমা রহমান, রেবেকা, কলকাতার রজতাভ দত্ত, সুপ্রিয় দত্ত, অমিতাভ ভট্রাচারিয় প্রমুখ।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে