পাকিস্তানে ধর্ষকের প্রকাশ্যে ফাঁসির প্রস্তাব

  অনলাইন ডেস্ক

২৪ জানুয়ারি ২০১৮, ২১:৫৬ | অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তানে ১৪ বছরের কম বয়সী শিশুদের ধর্ষণ করলে শাস্তি হিসেবে প্রকাশ্যে ফাঁসির প্রস্তাব এনেছে  দেশটির সিনেটের স্থায়ী কমিটি। আজ বুধবার পাকিস্তানের সিনেটের স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান রহমান মালিক বিলটি উপস্থাপন করেন।

পাকিস্তানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডনের খবরে বলা হয়, অপহরণ ও ধর্ষণ সংক্রান্ত দেশটির বিদ্যমান আইন সংশোধনের প্রস্তাব আনা হয়। প্রস্তাবনায় শিশু অপহরণ সংক্রান্ত পাকিস্তান দণ্ডবিধি ও কোড অব ক্রিমিনাল প্রসিডিউরে পরিবর্তন আনার কথা উল্লেখ রয়েছে। সিনেটের সচিবের কাছে লেখা এক চিঠিতে রেহমান মালিক এসব প্রস্তাব করেছেন।

ওই চিঠির বরাত দিয়ে ডনের খবরে বলা হয়, ‘ফৌজদারি অপরাধ আইন সংশোধন- ২০১৮’ শিরোনামের ওই বিলটি সিনেটে প্রস্তাব করা হয়েছে। ১৪ বছরের কম বয়সী শিশু অপহরণ ও যৌন নিপীড়ন সংক্রান্ত পাকিস্তান দণ্ডবিধি-১৮৬০ এর ৩৬৪-এ ধারায় সংশোধনের প্রস্তাব করেছে সিনেট। এতে অপরাধ প্রমাণিত হলে জনসম্মুখে দোষীর মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের বিধানের প্রস্তাব আনা হয়েছে।

চলমান অধিবেশন শেষ হওয়ার আগেই সিনেটে বিলটিতে অনুমোদন দিতে সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন রেহমান মালিক। তিনি বলেছেন, শিশু জয়নবের ধর্ষকের শাস্তি প্রকাশ্যে কার্যকর করে এর উদাহরণ স্থাপন করা যেতে পারে।

পাঞ্জাব প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শাহবাজ শরীফ গতকাল মঙ্গলবার এক সম্মেলনে শিশু জয়নবের ধর্ষককে গ্রেপ্তারের ঘোষণা দেন। এ সময় তিনি আদালতে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর ওই ধর্ষককে প্রকাশ্যে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে শাহবাজ শরীফ আরও বলেন, জয়নবের পরিবারসহ পুরো দেশ ও দেশের জনগণ ওই ধর্ষকের জনসম্মুখে ফাঁসি চান।

গত ৪ জানুয়ারি কুরআন শিক্ষার ক্লাসে যাবার পথে নিখোঁজ হয় জয়নব আনসারি। কয়েক দিন পর তার মৃতদেহ পাওয়া যায় শহরের একটি আবর্জনা ফেলার জায়গায়। জানা যায়, জয়নবকে ধর্ষণের পর গলা টিপে হত্যা করা হয়।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে