মন্দির বানিয়ে স্ত্রীর পূজা

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | আপডেট : ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০৮:৪৮ | অনলাইন সংস্করণ

প্রতীকী ছবি
স্ত্রীর অন্তিম ইচ্ছায়ই গ্রামে মন্দির স্থাপন করেছিলেন রাজু ওরফে রাজুস্বামী। এতেই ক্ষান্ত হননি ভারতের কর্নাটক রাজ্যের এই ব্যক্তি, মন্দিরে স্থাপন করেন স্ত্রীর মূর্তিও। প্রতিদিন রাজুর পূজা পান মৃত স্ত্রী। রাজু বলেন, ‘আমাদের ভালোবাসা স্বর্গীয়।’ তিনি অবশ্য এমনটা বলতেই পারেন। কারণ এক যুগ হয়ে গেছে, পূজা বাদ যায়নি এক দিনও।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়, রাজু তো পূজা দেন স্ত্রীর মূর্তিতে। কিন্তু তার এ সাধনা অনেকেরই কৌতূহলের বিষয়ে পরিণত হয়েছে। তাই দূরদূরান্ত থেকে কৃষ্ণপুর গ্রামে লোকজন আসেন রাজুর ‘রাজাম্মা’ মন্দির দেখতে। ২০০৬ সালে মন্দিরটি প্রতিষ্ঠা করেন এই কৃষিজীবী। নিজ হাতেই গড়েছেন স্ত্রীর মূর্তি। তবে শুধু স্ত্রী নয়, এ মন্দিরে পূজিত হন শনিশ্বরা (শনি দেবতা), সিদ্দাপাজ্জি, নবরাগ ও দেবতা শিব।

তিন একর জমির মালিক রাজু। যে স্ত্রীর জন্য তার ভালোবাসার এই বিরল প্রকাশ, তাকে ঘিরে কিন্তু ভিন্ন ঘটনা। রাজুর সেই স্ত্রী ছিলেন নিজের বোনের মেয়ে। তিনি বলেন, আমার মা-বাবা এ বিয়ের তীব্র বিরোধিতা করেন। তবে আমার বোন বা ভগ্নিপতি বিরোধিতা করেনি। বিয়ের কিছুদিন পর আমার স্ত্রী জানান, তিনি চান আমি যেন গ্রামে একটি মন্দির স্থাপন করি। মন্দির বানানো শুরু করলাম। কিন্তু এর আগেই স্ত্রী মারা গেলেন। তখনই সিদ্ধান্ত নিলাম, মন্দিরে স্ত্রীর মূর্তিও থাকবে।

তবে কাজটি এত সহজ ছিল না। মন্দিরে নিজের স্ত্রীর মূর্তি রাখার সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেন গ্রামের অনেকেই। রাজু তার সিদ্ধান্তে অনড়। তার কথা, আমার স্ত্রী তার মৃত্যুর বিষয়টি আগেই টের পেয়েছিলেন। তার স্বপ্ন ছিল এ মন্দির। এক ধরনের আধ্যাত্মিক শক্তি ছিল তার মধ্যে। আর এসবের জন্যই আমি তার মূর্তি বানিয়েছি, পুজোও করছি।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে