স্বামীর সঙ্গে থাকতে পারবেন হাদিয়া

  অনলাইন ডেস্ক

০৯ মার্চ ২০১৮, ১২:৫৬ | অনলাইন সংস্করণ

ভারতীয় তরুণী হাদিয়া। পুর্ব নাম আখিলা আসকান। চলতি বছর জানুয়ারিতে শাফিন জাহান নামের এক মুসলিমকে বিয়ে করেন তিনি। বদলে ফেলেন নিজ ধর্ম। তবে ভালোবাসার টানে দুজনের এই মিলনকে মেনে নেয়নি হাদিয়ার পরিবার। তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে কেরালা রাজ্যের একটি আদালত হাদিয়া ও শাফিনের বিচ্ছেদের রায় দেয়। এর পর থেকে বাবার বাড়িতে নজরদারির মধ্যে ছিলেন হাদিয়া।

এই রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে দিল্লির উচ্চ আদালয়ে রিট করেন হাদিয়া। সর্বশেষ গতকাল বৃহস্পতিবার নিম্ন আদালতের রায় নাকচ করে ওই দম্পতিকে এক সঙ্গে বসবাসের নির্দেশ দিয়েছেন দিল্লির আদালত।   

আদালতের প্রধান বিচারপতি দীপক মিসরার একটি বেঞ্চ জানায়, ‘আইননুযায়ী হাদিয়া ওরফে আখিলা আসকান নিজের ভবিষ্যৎ নিয়ে যেকোন পদক্ষেপ নিতে পারবেন। প্রাপ্ত বয়স্কদের মধ্যে বিবাহ বিচ্ছেদের অধিকার আদালতে নেই। ’

বেঞ্চটি থেকে আরও জানানো হয়, ভারতের জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা (এনআইএ) চাইলে ফৌজদারি আদালতে তদন্ত চালিয়ে যেতে পারে। মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা যায়।

এদিকে সুপ্রিম কোর্টের রায় নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন হাদিয়ার বাবা অশোক। তিনি অভিযোগ করে বলেন, “আমার মেয়েকে জোরপূর্বক বিয়ে দেওয়া হয়েছে। পরে তাকে ধর্মান্তরিতও করা হয়। এর পেছনে ‘ ‘লাভ জিহাদ’ জড়িত। এদের কাজ হলো হিন্দু ছেলে-মেয়েদের বিয়ে করে ইসলাম গ্রহণ করানো। আমার মেয়েও এই ভয়াবহতার শিকার।”
অশোক আরও বলেন, শাফিন জাহান একজন সন্ত্রাসী। সে ‘লাভ জিহাদ’ গ্রুপের একজন সদস্য।

গত সোমবার আদালতে কাঠগড়ায় হাদিয়া জানান, ‘আমি গত ১১ মাস ধরে বেআইনি হেফাজতে ছিলাম। আদালতের কাছে আমার স্বাধীনতা চাই।’
এ সময় স্বামী শাফিনকে নিয়ে রটা অভিযোগগুলোকে অযৌক্তিক বলে দাবি করেন তিনি।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে