মিয়ানমারে ফিরে গেলো প্রথম রোহিঙ্গা পরিবার

  অনলাইন ডেস্ক

১৫ এপ্রিল ২০১৮, ১১:১৮ | আপডেট : ১৫ এপ্রিল ২০১৮, ১৮:০৪ | অনলাইন সংস্করণ

সেনা নির্যাতনের মুখে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের একটি পরিবার নিজ দেশে ফিরে গেছে। গতকাল শনিবার মিয়ানমার সীমান্তে পা রাখার পর দেশটির কর্মকর্তারা তাদের স্বাগত জানান।

পরে এক বিবৃতিতে মিয়ানমার সরকার জানায়, পাঁচ সদস্যের একটি মুসলিম পরিবারকে মিয়ানমারে ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে। তারা শনিবার সকালে রাখাইন রাজ্যের তানজিপিওলেটওয়া অভ্যর্থনা কেন্দ্রে যায়।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ওই পরিবারের সদস্যদের অভিবাসন এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের মাধ্যমে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়। পরে সামাজিক কল্যাণ, ত্রাণ এবং পুনর্বাসন মন্ত্রণালয় তাদের চাল, মশারি, কম্বল, টি-শার্ট, লংজিস (বার্মিজ সারং) এবং রান্নাঘরের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সরবরাহ করে।

রোহিঙ্গা পরিবারের সদস্যরা মিয়ানমারের অভ্যন্তরে প্রবেশের সময় তাদের জাতীয় পরিচয়পত্রগুলোও (এনভিসিসি) দেওয়া হয় বলেও বিবৃতিতে জানানো হয়।

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার চলমান প্রক্রিয়ায় তাদের নিবন্ধনের অংশ হিসেবে ন্যাশনাল ভেরিফিকেশন কার্ড—এনভিসি দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে মিয়ানমার। তবে রোহিঙ্গা নেতারা জানিয়েছেন, এই কার্ডের মাধ্যমে মিয়ানমারে তাদের নাগরিকত্বকে অস্বীকার করা হতে পারে। এই পদক্ষেপে রোহিঙ্গাদের আজীবনের জন্য দেশটিতে শরণার্থী করে রাখার পাঁয়তারা করা হচ্ছে বলে দাবি করেন তারা।

গত বছরের আগস্টে মিয়ানমার সেনাবাহিনী রাখাইনে নির্যাতন শুরু করলে সাত লাখের বেশি সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিম প্রাণ বাঁচাতে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেন। জাতিসংঘ এবং পশ্চিমা বিশ্ব মিয়ানমার সেনাদের এই অভিযানে ‘জাতিগত নিধন’ এবং ‘গণহত্যার’ অভিযোগ আনেন। তবে বরাবর মিয়ানমার তা অস্বীকার করেছে।

এদিকে দুই বছরে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে চলতি বছরের জানুয়ারিতে ঢাকা-নেপিদো প্রত্যাবাসন চুক্তি স্বাক্ষর হয়। এই উদ্যোগ বাস্তবায়নে রাখাইনে দুটি অভ্যর্থনা কেন্দ্র স্থাপন করেছে মিয়ানমার। এগুলোকে অস্থায়ী শিবির নামে ডাকছে দেশটি।

তবে জাতিসংঘ সর্বশেষ জানিয়েছে, এখনো রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ফেরত যাওয়ার মতো পরিবেশ তৈরি হয়নি। জাতিসংঘের এমন সতর্কবার্তা সত্ত্বেও ফিরে গেলেন পাঁচ সদস্যের ওই রোহিঙ্গা পরিবার।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে