• অারও

নবজাতকের লাশ কমোডে ফেলে ফ্লাশ

  অনলাইন ডেস্ক

১৫ এপ্রিল ২০১৮, ১৬:২৬ | আপডেট : ১৫ এপ্রিল ২০১৮, ১৬:৩২ | অনলাইন সংস্করণ

প্রতীকী ছবি
ক্লিনিকের তত্ত্বাবধায়ক সকালে টয়লেটেরে কমোডে গিয়ে পানি জমে থাকতে দেখেন। পরে পরিচ্ছন্নকর্মীদের ডেকে সেটি পরিষ্কার করতে বললে বেরিয়ে আসে এক মেয়ে নবজাতকের লাশ।

গত শুক্রবার ভারতের কেরালা রাজ্যের পালিকার্ড জেলার একটি ক্লিনিকের কমোডে পাওয়া যায় দুই দিন বয়সের ওই নবজাতকের লাশটি। এ ঘটনায় থানায় একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা করেছে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ।

ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ বলছে, মেয়ে নবজাতকটিকে কমোডে ফেলে বেশ কয়েকবার ফ্লাশ করা হয়েছিল। কিন্তু পুরোটা ভিতরে চলে যায়নি। তাই পানি আটকে ছিল।

ক্লিনিকটির তত্ত্বাবধায়ক ড. আবদুল রহমান বলেন, ‘শুক্রবার সকালে ক্লিনিকের কমোডে পানি জমা দেখে পরিচ্ছন্ন কর্মীদের খবর দিই।’

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, পরিচ্ছন্নকর্মীরা টয়লেটটি পরিষ্কার করার সময় কমোডে বলের মতো শক্ত কিছু দেখতে পান। পরে জিনিসটি টেনে বের করে দেখেন, একটি নবজাতকের লাশ।

পুলিশের ধারণা, ক্লিনিকে চেকআপের নামে নবজাতককে নিয়ে এসেছিলেন তার পরিবার। পরে টয়লেটে গিয়ে শিশুটি কমোডে ফেলে ফ্লাশ করে তার বাবা-মা পালিয়ে যান।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এনডিটিভিকে বলেন, ‘তদন্ত এখনো চলছে। ক্লিনিকে আসা রোগীদের তালিকা বিশ্লেষণ করে দেখা হচ্ছে। তবে এখন পর্যন্ত নবজাতকটির পরিবার সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি। লাশটির ময়নাতদন্তের জন্য ত্রিসু মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে।’

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে