সিরিয়ায় ফের পশ্চিমা হামলা আন্তর্জাতিক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবে : পুতিন

  অনলাইন ডেস্ক

১৬ এপ্রিল ২০১৮, ১১:৩১ | আপডেট : ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ১৪:৫০ | অনলাইন সংস্করণ

সিরিয়ার পশ্চিমা শক্তিগুলো ফের হামলা চালালে আন্তর্জাতিক সম্পর্কে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হবে বলে মন্তব্য করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। স্থানীয় সময় রোববার রাশিয়ার অন্যতম মিত্র ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে ফোনালাপকালে এ কথা বলেন পুতিন।

রাশিয়াভিত্তিক বার্তা সংস্থা ক্রেমলিন প্রেস সার্ভিসের বরাত দিয়ে আরআইএ এ তথ্য জানিয়েছে।

সিরিয়ায় 'অবৈধভাবে' চালানো এই হামলা দেশটির রাজনৈতিক নিরাপত্তাকে ক্ষতিগ্রস্থ করবে বলে একমত হন দুই দেশের প্রেসিডেন্ট।

এ সময় পুতিন বলেন, ‌জাতিসংঘের আইন লঙ্ঘন করে এই ধরনের হামলা অব্যাহত থাকলে তা আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে অবশ্যই বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবে।

গেল সপ্তাহে সিরিয়ার পূর্ব ঘৌতা অঞ্চলের দৌমা শহরে রাসায়নিক হামলার অভিযোগ আনে দেশটির স্বেচ্ছাসেবক উদ্ধারকারী দল হোয়াইট হেলমেটসসহ আরও করেকটি সংস্থা। ওই হামলায় কমপক্ষে ৭০ জন নিহত হয়েছে বলে দাবি তোলে তারা। পরে শহরটিতে রাসায়নিক হামলার প্রমাণ মিলেছে বলে জানায় হোয়াইট হাউসও। তবে সিরিয়া সরকারের অন্যতম মিত্র রাশিয়া বরাবরই রাসায়নিক হামলার কথা অস্বীকার করে এসেছে।

পরে গত শুক্রবার সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কের বিভিন্ন ঘাঁটিতে হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স। সেদিন মার্কিন জোটের হামলায় শতাধিক ক্ষেপণাস্ত্র সিরীয় ভূখণ্ড লক্ষ্য করে ছোঁড়ার দাবি করে মার্কিন সেনাবাহনী। তবে রাশিয়ার সেনাবাহিনী পশ্চিমাদের ছোড়া ১০৩টি ক্ষেপণাস্ত্রের ৭১টিই ভূপাতিত করেছে।

হামলার পর পরই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, সিরিয়ায় আরও হামলা চালানোর জন্য প্রস্তুত আছে যুক্তরাষ্ট্র।

এ দিকে স্থানীয় সময় রোববার জাতিসংঘে নিযুক্ত মার্কিন দূত নিকি হ্যালে জানিয়েছেন, সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের 'লক্ষ্য' অর্জন না হওয়া পর্যন্ত দেশটিতে মার্কিন সেনা অবস্থান করবে।  

হ্যালে বলেন, 'আমরা মার্কিন সেনাদের এখানে দেখতে চেয়েছিলাম, কিন্তু আমরা যতক্ষণ না পর্যন্ত আমাদের ওই লক্ষ্যগুলো পুরণ করবো, ততক্ষণ সেনারা সিরিয়া ছাড়বে না।'

সিরিয়ায় মার্কিন বাহিনীর অবস্থানের পক্ষে নিজের সমর্থনের কথা ডোনাল্ড ট্রাম্পকে জানিয়েছে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরোঁ। 

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে