ইসরায়েলের কনসালকে অস্থায়ী বহিষ্কার তুরস্কের

  অনলাইন ডেস্ক

১৬ মে ২০১৮, ১৬:০০ | আপডেট : ১৬ মে ২০১৮, ১৭:০১ | অনলাইন সংস্করণ

গাজা সীমান্তে ফিলিস্তিনীদের ওপর ইসরায়েলের বর্বরোচিত হামলাকে কেন্দ্র করে ইস্তাম্বুলে নিযুক্ত ইসরায়েলের কনসাল জেনারেল ইউসুফ লেভি সাফারিকে অস্থায়ী বহিষ্কারাদেশ দিয়েছে তুরস্ক। আজ বুধবার দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে এ কথা জানান তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

সংবাদ সংস্থা আনাদোলু এজেন্সির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইসরায়েলের কনসালকে ‘একটি নির্দিষ্ট সময়ের’ জন্যে তুরস্ক ত্যাগ করতে বলেছে। এ ছাড়া আঙ্কারায় নিযুক্ত ইসরায়েলের রাষ্ট্রদূতকে দেশ ত্যাগের নির্দেশ দিয়েছে। ইতোমধ্যেই তেল আবিব থেকে তাদের রাষ্ট্রদূতকে প্রত্যাহার করে নিয়েছে তুরস্ক।

কূটনীতি বহিষ্কারের পাল্টা জবাবে জেরুজালেমে নিযুক্ত তুরস্কের কনসালকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বহিষ্কারাদেশ দিয়েছে ইসরায়েল।

ইসরায়েলের অধিকৃত জেরুজালেমে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস স্থানান্তরের বিরুদ্ধে নজিরবিহীন বিক্ষোভ করছে ফিলিস্তিনের সাধারণ মানুষ। লাখো মানুষের বিক্ষোভে উত্তাল গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর গুলিতে গত সোমবার ৬২ ফিলিস্তিনি নিহত হন। আহত হয়েছেন দু’হাজারের বেশি।

প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়, ১৯৪৮ সালে ফিলিস্তিনের কাছ থেকে ওই অঞ্চল ইসরায়েল দখলে নেওয়ার পর থেকে ফিলিস্তিনিরা এটিকে 'নাকবা' (বিপর্যয় দিবস)  বা 'গ্রেট মার্চ রিটার্ন মুভমেন্ট'  হিসেবে পালন করছেন। সেই সূত্রে সোমবার লাখ লাখ মানুষ সীমান্তে ভিড় করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে থাকেন। এ সময় ফিলিস্তিনিদের লক্ষ্য করে ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর স্নাইপাররা গুলি ছুড়তে শুরু করে। এ ছাড়া সীমান্তের বেশ কিছু পয়েন্টে ফিলিস্তিনিদের বিক্ষোভে সরাসরি গোলাবারুদ ও টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে ইসরায়েলি সেনারা।

এদিকে গাজা সীমান্ত থেকে মাত্র কয়েক কিলোমিটারের দূরত্বে জেরুজালেমে মার্কিন কনস্যুলেট ভবনের ভেতরে ছোট পরিসরে অন্তর্বর্তীকালীন দূতাবাসের কার্যক্রম শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র। দূতাবাসের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেয়ে ইভানকা ট্রাম্প এবং জামাতা জ্যারেড কুশনার।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে