আহারে প্রেম!

  অনলাইন ডেস্ক

১৩ জুন ২০১৮, ১৯:৪২ | অনলাইন সংস্করণ

স্কুলশিক্ষক স্বামী ও পাঁচ বছরের ছেলে সন্তানকে রেখে বাড়ির পাশের তরুণের সঙ্গে প্রেমে জড়িয়েছিলেন গৃহবধূ। কিন্তু তাদের সেই সম্পর্ক কেউ মেনে নেয়নি। এ কারণে স্বামী-সন্তান রেখে প্রেমিক তরুণের সঙ্গে নিখোঁজ হন গৃহবধূ। পরে তাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

আজ বুধবার সকালে ভারতের হুগলি জেলার মগড়া-তালান্ডু স্টেশন থেকে রীতিকা রায় ও যুগল দাস নামে ওই দুজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। 

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে জি-নিউজ জানায়, ২২ বছরের তরুণ যুগল দাসের সঙ্গে দুই বছর ধরে প্রেম করছেন রীতিকা রায়। রীতিকার স্বামী নিখিল রায় স্থানীয় প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক। যুগল দাসের সঙ্গে রীতিকার প্রেমের সম্পর্ক প্রকাশ পেলে শুরু হয় দাম্পত্য কলহ। দুই পরিবারে অশান্তি চরমে ওঠে। কিছুদিন মেলামেশা বন্ধ করে যুগল-রীতিকা। তবে গোপনে মুঠোফোনে চলত তাদের কথা।   

পুলিশ জানায়, যুগল দাস স্থানীয় একটি কলেজের তৃতীয় বর্ষে পড়তেন।  বিবাহিত মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক মেনে নিতে পারেনি যুগল দাসের পরিবার। তারপরও রীতিকা রায়ের সঙ্গে স্কুটার নিয়ে প্রায়ই ঘুরতে যেতেন যুগল। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরে স্ত্রীকে দেখতে না পেয়ে ফোন করেন তার স্কামী নিখিল রায়। কিন্তু রাতেই তিনি বাড়ি পেরেননি। যুগল দাসেরও খোঁ পাওয়া যায়নি। অবশেষে আজ ভোরে দুজনের লাশ উদ্ধার করা হয় রেললাইনের ধার থেকে। ব্যান্ডেল জিআরপি তাদের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে