সেলফি তোলায় হত্যার হুমকি, ছাড়তে হলো দেশও

  অনলাইন ডেস্ক

১৭ জুন ২০১৮, ১১:৩৬ | অনলাইন সংস্করণ

বামে মিস ইসরাইল এডার গান্ডেলসম্যান, ডানে মিস ইরাক সারাক সারাহ
সেলফি তোলা এখন খুব সাধারণ বিষয়। কিন্তু এই সেলফি তুলতে যেয়ে এত সমস্যা হবে তা ভাবেননি ইরাকের সারাহ নামের এই তরুণী। ২৮ বছরের সারাহ ইসরায়েলের এক তরুণীর সঙ্গে সেলফি তোলায় তাকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, শেষ পর্যন্ত সপরিবারে দেশ ছাড়তে হলো।

গত বছর নভেম্বরে নিজের ইনস্টাগ্রামে মিস ইসরাইল এডার গান্ডেলসম্যানের সঙ্গে একটি ছবি পোস্ট করেন মিস ইরাক সারাক সারাহ। আর এতেই ঘটে বিপত্তি।

ঘটনাটি নিয়ে সারাহ বলেন, ‘আমি ও আমার পরিবার মৃত্যুর হুমকি পেয়েছিলাম। তাই পরিবারসহ দেশ ছাড়তে হয়। আমি খুবই ভয় পেয়েছিলাম। কিন্তু আমি ছবিটি সরিয়ে ফেলিনি। মিস ইরাক অর্গানাইজেশন চেয়েছিল ছবিটি সরাতে কিন্তু আমি তা করিনি।’

ছবিটিকে ঘিরে ইসরায়েলকে নিয়ে মুসলিম দেশগুলোর মনোভাবের জের ধরে শুরু হয় একের পর এক বিতর্ক। অবশেষে নিজের মাতৃভূমি ছাড়তে বাধ্য হন মিস ইরাক সারাহর পরিবার।

এদিকে দখলদারিত্বের জন্য মধ্যপ্রাচ্য কিংবা উপসাগরীয় অঞ্চলের বহু মানুষ ইসরায়েলকে কিংবা এর কোনো নাগরিককে সহজভাবে গ্রহণ করে না। তবে জাতিসংঘের অ্যাম্বাসেডর অব পিস কিংবা শান্তির দূত সারাহ ও এডার বিষয়টি সাধারণভাবেই নিয়েছিলেন।

তবে সুন্দরী প্রতিযোগিতা হোক আর অন্য যেকোনো কিছুই হোক, ইসরায়েল ও আরব দেশগুলোর সবাই এমন স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে সচেতন থাকেন সবসময়। মিস ইসরাইল এডার গান্ডেলসম্যানও তার বাইরে নন তারই প্রমাণ মিলনো সারাহর ওপর আসা প্রাণনাশের হুমকি থেকে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে