অবৈধ সম্পর্ক রাখতে না চাওয়ায় খুন

  অনলাইন ডেস্ক

১৯ জুলাই ২০১৮, ১৬:৩২ | আপডেট : ১৯ জুলাই ২০১৮, ১৬:৫১ | অনলাইন সংস্করণ

পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে প্রতিবেশীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন এক নারী। কিন্তু বড় ছেলের বিয়ের পর অবৈধ সম্পর্কটি শেষ করতে গিয়ে খুন হয়েছেন খনা মিত্র (৩৮) নামের ওই গৃহবধূ। নিজের বাড়িতে পরকীয়া প্রেমিকের কোদালের আঘাতে খুন হয়েছেন তিনি।

গতকাল বুধবার ঘটনাটি ঘটেছে কলকাতার পূর্ব বর্ধমানের আউশগ্রামের ছোড়াকলোনিতে। জানা গেছে, গত পাঁচ বছর ধরে প্রতিবেশী সত্যেন বিশ্বাস (২৮) নামে এক যুবকের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল ছোড়কলোনির বাসিন্দা খনা মিত্রের। প্রকাশ্যে তারা স্বামী স্ত্রীর মত আচরণ করতেন। ঘরে কেউ না থাকলে দুজনে শারীরিক সম্পর্কে মিলিত হতেন।

সম্প্রতি খনার বড় ছেলের বিয়ে হয়। ঘরে ছেলেও বউ থাকায় নিজেদের এই সম্পর্ক আর বাড়াতে চাননি খনা। এর পর থেকে বিভিন্ন জায়গায় তার সঙ্গে দেখা করতে চাইতেন সত্যেন বিশ্বাস। কয়েকবার তাকে শারীরিক সম্পর্কের আহ্বানও জানান। কিন্তু তার প্রস্তাব গ্রহণ করেননি খনা।

বুধবার নিজের ঘরে কাজ করছিলেন খনা মিত্র। এ সময় ঘরে ঢুকে কোদাল দিয়ে তার মাথায় ও বুকে আঘাত করে খুন করেন সত্যেন।

বাড়ি ফিরে মায়ের লাশ দেখে আউশগ্রাম থানায় অভিযোগ দায়ের করেন খনার ছেলে লক্ষন। পুলিশ এসে তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়। পরে লক্ষনের অভিযোগের ভিত্তিতে সত্যেন বিশ্বাসকে আটক করে পুলিশ। থানায় নিয়ে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে খুনের কথা স্বীকার করেন। পাশাপাশি কেন খুন করেছেন তাও বলেন।

আউশগ্রাম থানা কর্মকর্তা বিজেন্দ্রনাথ অধিকারী জানান, খনার সঙ্গে সত্যেনের অবৈধ সম্পর্ক ছিল। কিন্তু ছেলে বিয়ের পর তা আর রাখতে চাননি খনা। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে খুন করেন সত্যেন। তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। খুনের তদন্তের আরও কিছু কাজ বাকি আছে। এরপর তাকে আদালতে পাঠান হবে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে