কেরালায় শতাব্দীর ভয়াবহ বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১০৬

  অনলাইন ডেস্ক

১৭ আগস্ট ২০১৮, ১১:১৩ | অনলাইন সংস্করণ

ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য কেরালায় কয়েক দিনের ভারী বর্ষণের ফলে সৃষ্ট বন্যায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১০৬ জনে দাঁড়িয়েছে। গত এক শতাব্দীর এমন ভয়াবহ বন্যায় গৃহহীন হয়েছেন অন্তত দেড় লাখ।

ভূমিধসের ফলে সৃষ্ট ধ্বংসযজ্ঞের নিহতদের বেশির ভাগই মারা গেছেন বলে জানিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। এ দিকে আগামী ২৬ আগস্ট পর্যন্ত বিমানবন্দরের সব ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে বলে আরও জানানো হয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কেরালা রাজ্যে গত ৮ আগস্ট থেকে শুরু ভারী বৃষ্টির ফলে সৃষ্ট বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনরাই বিজয় এক টুইট বার্তায় ওই রাজ্যে অবস্থিত কচি আন্তজার্তিক বিমানবন্দর আগামী শনিবার পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করেছেন। এছাড়া গত বুধবার তিনি বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেছেন।

এদিকে বন্যায় আক্রান্তদের ক্ষতিপূরণের ঘোষণা দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। যারা নিজেদের জমি ও ঘর দুটোই হারিয়েছেন তাদের মোট ১০ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হচ্ছে। এরমধ্যে ছয় লাখ টাকা জমি কেনার এবং চার লক্ষ টাকা বাড়ি বানানোর। বন্যার্তদের মধ্যে যাদের গুরুত্বপূর্ণ নথি হারিয়ে গিয়েছে তাদের বিনামূল্যে নথি তৈরির আশ্বাস দিয়েছে প্রশাসন।

ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্সের (এনডিআরএফ) পাশাপাশি দেশটির সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনী উদ্ধার ও ত্রাণ তৎপরতায় অংশ নিয়েছে।
দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কেন্দ্র জানায়, বন্যায় ১ হাজার ৩১ হেক্টর জমির ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ২৬ বছরের মধ্যে এই প্রথম ইদুক্কি বাঁধ এলাকায় তিন মাত্রার সতর্কতা জারি করে ওয়াটার রিজার্ভারের ফটক খুলে দেওয়া হয়েছে। রিজার্ভারের পানি উচ্চতা ২ হাজার ৪০০ ফুটের বেশি হওয়ার পর গত বৃহস্পতিবার সেটির তিনটি ফটক খুলে দেওয়া হয়। এতে একাধিক নদীর পানি বেড়ে গিয়ে এলাকা প্লাবিত হয়েছে।

  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ

ই-পেপার

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে